ট্রাম্পের মুসলিমবিরোধী আদেশ স্থগিত

0
158

15-(3)আন্তর্জাতিক ডেস্ক:প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা ৭ মুসলিম দেশের অভিবাসীদের, যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা সাময়িক স্থগিত করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় একটি আদালত। যুক্তরাষ্ট্রের জেলা জজ এ্যান ডোনেলি এ আদেশ দেন। যাদের কাছে বৈধ ভিসা রয়েছে তা কার্যকর রাখার নির্দেশ দেন তিনি।

দি আমেরিকান সিভিল লিবার্টিস ইউনিয়ন ট্রাম্পের অভিবাসী নিয়ে সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মামলা করলে নিউইয়র্কের ফেডারেল আদালত এ স্থগিতাদেশ দেন। এর ফলে ট্রাম্পের ওই নির্বাহী আদেশ বাস্তবায়ন আপাতত স্থগিত থাকবে।

অভিবাসী অধিকার নিয়ে কাজ করে এমন একটি প্রতিষ্ঠান ইমিগ্রান্টস রাইটস প্রোজেক্টের ডেপুটি লিগ্যাল ডিরেক্টর লি গেলের্ন্ট আদালতে বিমানবন্দরে আটক শরণার্থীদের ব্যাপারে শুনানিতে অংশ নেন। এসময় আদালতের বাইরে অভিবাসীদের পক্ষে বিক্ষোভকারীরা দিচ্ছিলেন। লি গেলের্ন্ট আদালতকে জানান, বিমানবন্দরে আটকের পর কোনো কোনো শরণার্থীকে পুনরায় বিমানে ফেরতের চেষ্টা চলছে।

জানা গেছে, ইতোমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছেন, অথবা ভ্রমণরত অবস্থায় আছেন; এমন নাগরিকদের বেলায় ট্রাম্পের নতুন অভিবাসন নীতি প্রয়োজ্য হবে না। বৈধ কাগজপত্রের অধিকারী যারা, তাদের ক্ষেত্রেও ট্রাম্পের নীতি বাস্তবায়িত হবে না বলে জানিয়েছে আদালত।

শুক্রবার এক নির্বাহী আদেশে তিন মাসের জন্য ৭ মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে স্থগিতাদেশ দেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পাশাপাশি শরণার্থী কর্মসূচি চার মাসের জন্য স্থগিত করেন তিনি। তবে সব শরণার্থীর বেলায়, কর্মসূচি স্থগিতের মেয়াদ নির্দিষ্ট ৪ মাস হলেও সিরিয়ার ক্ষেত্রে এই মেয়াদ অনির্দিষ্টকালের।

অবশ্য শনিবার ট্রাম্প বলেন, এ নিষেধাজ্ঞা মুসলিমদের বিরুদ্ধে নয়।

আগামী ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে এ বিষয়টি নিয়ে ফের আদালতে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে সিরিয়া, ইরান, ইরাক, লিবিয়া, সোমালিয়া, ইয়েমেন ও সুদান -এই সাতটি দেশের নাগরিকদের আগামী তিন মাস কোনো ভিসা না দেওয়া ও যুক্তরাষ্ট্রে আগমনে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here