টাইসন, হাদিদ বা একন- এই মহাতারকারা সবাই মুসলমান!

0
185
ছবি: অনেকেই ভাবতে পারেননি যে এই মহাতারকারা সবাই মুসলমান
ছবি: অনেকেই ভাবতে পারেননি যে এই মহাতারকারা সবাই মুসলমান

বিনোদন ডেস্ক: এ মাসেই প্রথম দিকেই নিজেকে ‘গর্বিত মুসলিম’ বলে ঘোষণা দিয়েছে বেলা হাদিদ। তিনি ভিক্টোরিয়াস সিক্রেট অ্যাঞ্জেল। বিশ্বের টপ মডেলদের মধ্যে শীর্ষস্থানীয়। ২০ বছর বয়সী এই মডেলকন্যা এক সাক্ষাৎকারে জানান, তার বাবা ছিলেন ফিলিস্তিনের শরণার্থী। তিনি সব সময় ধর্মপ্রাণ মুসলমান ছিলেন। এর আগে বেলা হাদিদ তার ধর্ম নিয়ে কখনোই কথা বলেননি।

বিশ্বে এমন অনেক তারকা আছেন যারা মুসলমান। কিন্তু কখনো তা স্পষ্টভাবে বলেননি বা মিডিয়াতে আসেনি। এখানে চিনে নিন এমনই কয়েকজন তারকাকে। আপনি তাদের নিশ্চয়ই খুব ভালো করেই চেনেন। কিন্তু জানতেন না বা কখনো ভাবেননি যে তারা মুসলমান।

১. একন 
হিপ-হপ তারকা একনকে কে না চেনেন? কিন্তু কখনো জানতেন যে তিনি মুসলমান। অথচ ২০০০ সালের দিকে এক প্রেস কনফারেন্সে বলেছিলেন যে তিনি মুসলিম। তার আসল নাম আলিয়ুনে দামালা বাদারা। শুধু তাই নয়, তিনি নিজেকে ধর্মপ্রাণ মুসলমান বলে দাবি করেন।

২. মাইক টাইসন 
এই বিশ্বখ্যাত মুষ্টিযোদ্ধার আসল নাম মালিক। তিনি মুসলমান। কেউ জানতেন কখনো এ কথা? ১৯৮৫-২০০৫ সাল পর্যন্ত মুষ্টিযুদ্ধের দুনিয়ায় তিনি ছিলেন ‘অপরাজিত এবং অপরাজেয়’। টাইসন এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ধর্ম খারাপ নয়। মানুষই ধর্মকে খারাপ করে।

৩. আইস কিউব 
সাবেক এনডাব্লিউএ র‍্যাপার নিজেকে ‘সাধারণ মুসলমান’ বলে মন্তব্য করেন। তবে বিষয়টা শুধু তার এবং খোদার মধ্যকার একান্তা বিষয়, মনে করেন তিনি। মসজিদে নামাজ পড়তে যান না। কারণ, এটা তার হয়ে ওঠে না।

৪. এলেন বারস্টিন 
তিনি বেড়ে উঠেছিলেন ক্যাথলিক হিসাবে। পরে ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হন। সুফিবাদের চর্চা শুরু করেন। ‘অ্যালিস ডাজেন্ট লিভ হেয়ার এনিমোর’ ছবির জন্যে অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন। ‘ইন্টারস্টেলার’ এবং ‘দ্য একসরসিস্ট’ ছবিতেও অভিনয় করেছেন।

৫. ডেভিড চ্যাপেল 
তিনি এক বিখ্যাত স্ট্যান্ড-আপ কমেডিয়ান, অভিনেতা এবং প্রযোজক। ১৯৯৮ সালে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, নিজের ধর্ম নিয়ে কথা বলতে ভালো লাগে না। তবে এই ধর্মের সঙ্গে সম্পর্কটা তার নিজের ভাষায় ‘সৌন্দর্যমণ্ডিত’।

৬. ড. মেহমেত ওজ 
তুরস্কের এই বিখ্যাত চিকিৎসককে অপরাহ উইনফ্রে শো-তে কয়েকবার দেখা গেছে। তিনি মুসলমান। বলেন, নিজের মুসলমান পরিচয় নিয়ে আমাকে যথেষ্ট সংগ্রাম করতে হয়েছে। তুরস্কের মানুষ আমি আমেরিকায় বড় হয়েছি। কিন্তু ক্রমেই আমি এই ধর্মের আধ্যাত্মবাদের সঙ্গে জড়িয়ে গেছি।

৭. শাকুইল ও’নিল 
অবসরপ্রাপ্ত এই আমেরিকান পেশাদার বাস্কেটবল খেলোয়াড় তার ধর্ম বিষয়ে তেমন কথা বলেননি কখনো। এনবিএ’র যাত্রায় তিনি ১৯ বছরে ছয়টি দলের সঙ্গে খেলেছেন। নামকরা এই খেলোয়াড় বেড়ে উঠেছেন খ্রিষ্টান মায়ের ভালোবাসায়। তার সৎ বাবা ছিলেন মুসলমান। এক সাক্ষাৎকারে নিজের ধর্ম নিয়ে কথা বলেন।
সূত্র : ইজিপশিয়ান স্ট্রিট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here