জেরুজালেম ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের ভেটো, বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড়

0
66

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জেরুজালেম ঘোষণার বিরুদ্ধে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের একটি খসড়া প্রস্তাবে যুক্তরাষ্ট্রের ভেটো দেয়ার ঘটনায় বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

ফ্রান্স, স্পেন, তুরস্ক ও ফিলিস্তিনসহ বিশ্বের আরব দেশগুলো যুক্তরাষ্ট্রের এ ভূমিকায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

তবে ভেটো প্রদানের জন্য জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি ও ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।

এদিকে ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংকট সমাধানে মধ্যস্থতা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে রাশিয়া। এত দিন যুক্তরাষ্ট্র এ বিষয়ে মধ্যস্থতা করে আসছে। খবর আলজাজিরা ও এএফপির।

সোমবার নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দফতরে ওই প্রস্তাবের পক্ষে ভোট হয়। ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা দেয়ার দু’সপ্তাহের ব্যবধানে নিরাপত্তা পরিষদে এ খসড়া প্রস্তাব উপস্থাপন করে মিসর।

প্রস্তাবে নিরাপত্তা পরিষদের ১৪টি সদস্য রাষ্ট্র সমর্থন জানালেও ভেটো দেয় যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র পরিষদের স্থায়ী সদস্য হওয়ায় এ খসড়া প্রস্তাব বাতিল হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের এ পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা ও নিন্দার ঝড় উঠেছে।

তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, ‘প্রস্তাবটিতে নিরাপত্তা পরিষদের ১৪ সদস্যেরই অনুমোদন জেরুজালেম ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্ হয়।

ফিলিসি্তনের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র নাবিল আবু রুদেইনা বলেন, এটি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জন্য অপমানজনক এবং ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলের দখলদারিত্ব এবং আগ্রাসনকে অনুমোদন দেয়ার শামিল।

জাতিসংঘে ফিলিসি্তনি রাষ্ট্রদূত রিয়াদ মনসুর বলেন, ‘আমরা সবাই যখন যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে শানি্তপূর্ণ একটি পরিকল্পনার প্রত্যাশা করছিলাম, তখন দেশটি শানি্ত প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করার সদ্ধিান্ত নিয়েছে। এটা স্ববিরোধী।’

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস জানায়, জেরুজালেম সব সময়ই ফিলিস্তিনের রাজধানী থাকবে। ইসরাইল এবং যুক্তরাষ্ট্র এ সত্য কখনই পরিবর্তন করতে পারবে না।

ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত ফর্্যাংকয়েস ডেলাট্রেও যুক্তরাষ্ট্রের ভেটো ক্ষমতার সমালোচনা করে বলেন, ‘খসড়া প্রস্তাবটি যুগ যুগ ধরে জেরুজালেম প্রসঙ্গে আন্তর্জাতিক মতৈক্যের প্রতিফলনকেই নিশ্চিত করছে।

এটা পাস না হওয়াটা দুঃখজনক।’ ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, মার্কিন সরকার এ পদক্ষেপের মাধ্যমে প্রমাণ করেছে যে, ফিলিস্তিনিদের অধিকার লঙ্ঘন করে যুক্তরাষ্ট্র মধ্যপ্রাচ্য সংকটের সমাধান করতে চায়।

মিসরের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আহমেদ আবু জেইদ দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের বিবেককে নাড়া দিয়েছে এমন গুরুত্বপূর্ণ একটি সিদ্ধান্তে মিসর শোকাহত।

তবে ফেসবুকে পোস্ট করা এক ভিডিওতে মিসরের প্রস্তাবে ভেটো দেয়ায় জাতিসংঘ প্রতিনিধি হ্যালি ও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ‘ধন্যবাদ’ জানিয়েছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী।

ভিডিওতে নেতানিয়াহু বলেন, ‘ধন্যবাদ মার্কিন দূত হ্যালি। আপনি অন্ধকার দূর করে আলো জ্বালিয়েছেন। একাই অনেককে পরাজিত করেছেন। সত্য মিথ্যাকে পরাজিত করেছে। ধন্যবাদ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, ধন্যবাদ নিকি হ্যালি।’

ফিলিস্তিন-ইসরাইল সংকট সমাধানে মধ্যস্থতা করার আগ্রহ দেখিয়েছে রাশিয়া। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের যুক্তরাষ্ট্র ভেটো প্রদানের পর দেশটির এমন আগ্রহের কথা জানান জাতিসংঘে দেশটির সহকারী রাষ্ট্রদূত ভ্লাদিমির সাফ্রোনকোভ।

নিরাপত্তা পরিষদে যুক্তরাষ্ট্র ভেটো প্রদানের পর রাশিয়া ‘একজন সৎ মধ্যস্থতাকারী’ হতে প্রস্তুত আছে বলে জানান তিনি। এতদিন যুক্তরাষ্ট্র ওই ভূমিকা পালন করে আসছিল।

ট্রাম্পের জেরুজালেম নীতি ঘোষণার পরই মধ্যস্থতাকারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাখ্যান করেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

সাফ্রোনকোভ বলেন, ‘ইসরাইল-ফিলিস্তিনের সরাসরি সমঝোতার বিষয়টি দিন দিন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here