জঙ্গিবাদ দমনে গণতন্ত্রের বিকল্প নেই : বিএনপি নেতৃবৃন্দকে কংগ্রেসম্যান মিক্স

0
110

08052016_01_US_BNPনিউইয়র্ক থেকে : ‘বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ নির্মূলে শেখ হাসিনার সরকারের গৃহিত পদক্ষেপ কতটা কার্যকরী সে সম্পর্কে জানতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে কথা বলবো। কারণ, এটি সময়ের গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এ নিয়ে কালক্ষেপণের অবকাশ থাকতে পারে না’-এমন অভিমত পোষণ করেছেন মার্কিন কংগ্রেসের নি¤œকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে পররাষ্ট্র সম্পর্কিত কমিটির প্রভাবশালী সদস্য কংগ্রেসম্যান (নিউইয়র্ক, ডেমক্র্যাট) গ্রেগরী মিক্স। কংগ্রেসনাল বাংলাদেশ ককাসের সদস্য গ্রেগরী মিক্স বলেন, ‘বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা সুসংহত থাকবে-এটি আমাদের প্রত্যাশা।’

৪ আগস্ট অপরাহ্নে নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য সিনেটে ডেমক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী এড্রিয়েন এডামস-এর নির্বাচনী প্রচার সমাবেশের সাইড লাইনে এই কংগ্রেসম্যানের সাথে সাক্ষাত করেন বিএনপি নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলন। এ সময় তিনি কংগ্রেসম্যানকে অবহিত করেন যে, ‘বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক সরকার না থাকায় জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটছে।’ বর্তমানে ক্ষমতাসীন শেখ হাসিনা সরকারকে অনির্বাচিত সরকার হিসেবে অভিহিত করে বিএনপির এই নেতা আরো জানান, ‘জঙ্গিবাদ নির্মূলে সরকারের আহবানে মানুষ সাড়া দিচ্ছে না।

কারণ, এ সরকারের সাথে সাধারণ মানুষদের কোনই সম্পর্ক নেই।’ এসব জেনে কংগ্রেসম্যান উদ্বেগ প্রকাশ করে ওয়াশিংটন ডিসিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে এ নিয়ে কথা বলবেন বলে উল্লেখ করেন। ‘সন্ত্রাস দমনে গণতন্ত্রের বিকল্প নেই’-উল্লেখ করেন কংগ্রেসম্যান। এ অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী মিলনসহ যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতা গিয়াস আহমেদকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন কুইন্স ডেমক্র্যাটিক পার্টির ডিস্ট্রিক্ট লিডার এ্যাট লার্জ মোহাম্মদ আমিনুল্লাহ। এনআরবি নিউজকে এসব তথ্য জানান বিএনপির সাবেক আন্তর্জাতিক সম্পাদক গিয়াস আহমেদ।  অনুষ্ঠানে কুইন্স বরো প্রেসিডেন্ট মেলিন্ডা কাটজসহ অঙ্গরাজ্য পার্লামেন্ট ও সিটি কাউন্সিলের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তারাও ছিলেন।