চুল ঘন করা ও চুল পড়া বন্ধ করার জন্য উপকারী ৬ টি ভেষজ

0
142

neemচুল শুধু আপনার শরীরের একটি অংশই না এটি সৌন্দর্য ও স্বাস্থ্যের ও প্রতীক। চুলের সঠিক যত্ন নেয়া প্রয়োজন যাতে অসময়ে চুল পড়ে না যায়। এটি কোন মারাত্মক সমস্যা নয়। সামান্য সতর্কতা অবলম্বন করলেই চুল পড়া রোধ করা যায়। গর্ভাবস্থায় বা কোন অসুস্থতার কারণে বা জেনেটিক কারণে চুল পড়ার সমস্যা হতে পারে। কিছু ভেষজ ব্যবহার করে চুল পড়ার সমস্যা কমানো যায়। চুল পড়া বন্ধ করে চুলের বৃদ্ধিকে উদ্দীপিত করতে সাহায্য করে যে প্রাকৃতিক উপাদানগুলো সেগুলোর বিষয়েই জানবো আজ।

১। পিপারমিন্ট

চুল পড়া কমানো ও চুলের বৃদ্ধির জন্য বহু কাল থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে পিপারমিন্ট অয়েল।এই তেল চুলের ফলিকলকে উদ্দীপিত করতে সাহায্য করে এবং রক্ত সঞ্চালনের উন্নতি ঘটায়। এছাড়াও চুলের মূলকে মাথার তালুর সাথে আবদ্ধ হয়ে থাকতে সাহায্য করে।

২। অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা ত্বক ও চুলের জন্য দারুণ কার্যকরী। এটি চুলের বৃদ্ধিতেও চমৎকার ভাবে সাহায্য করে। মাথার তালুর রক্ত সংবহনকেও উদ্দীপিত করে অ্যালো জেল। অ্যালোভেরা জেল নিয়মিত মাথার তালুতে ব্যবহার করলে উপকার পাওয়া যায়। চুলের বৃদ্ধির জন্য সবচেয়ে ভালো অ্যালোভেরা জেল নারিকেলের দুধের সাথে মিশিয়েও ব্যবহার করতে পারেন।

৩। হেনা বা মেহেদি

হেনা সাধারণত চুল রঙ করার জন্যই ব্যবহার করা হয়। কিন্তু এটি চুলের সার্বিক স্বাস্থ্যের জন্যই উপকারী। এটি চুলকে শক্তিশালী করা ও ঘন করার জন্য প্রোটিন ট্রিটমেন্টের মত কাজ করে।

৪। মেথি

মেথি হচ্ছে প্রাকৃতিক কন্ডিশনার। মেথির বীজ দীর্ঘক্ষণ ভিজিয়ে রাখলে কাদার মত গঠন হয়। এর  সাথে শিকাকাই, আমলা ও মেহেদি মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি মাথার তালুতে ও চুলে লাগান।

৫। নিম

নিমের তেল দ্রুত চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং চুলকে শক্তিশালী, সিল্কি ও উজ্জ্বল করে। নিম পাতার পেস্ট ব্যবহার করলে মাথার তালুর পুষ্টি পায় এবং চুলের শুষ্কতা ও চামড়া উঠার সমস্যা ও দূর হয়।

৬। ল্যাভেন্ডার

ল্যাভেন্ডারের চমৎকার ঘ্রাণ শুধু অনুভূতিকে শীতলতাই দান করেনা বরং চুলের বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে এবং টাক পড়া প্রতিরোধ করে। প্রতিদিন মাথায় ল্যাভেন্ডার অয়েল ব্যবহার করলে টেনশন ও মাথাব্যথা কমতে সাহায্য করে। এই উভয় সমস্যাই চুল পড়ার বড় কারণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here