চীনের কোম্পানির কাছে ৩ গ্যাসক্ষেত্র বিক্রি করল শেভরন, অন্ধকারে পেট্রোবাংলা

0
32
chevron-bangladesh_287720নিউজ ডেস্ক: শেভরন বাংলাদেশে তার আওতাধীন তিন গ্যাস ক্ষেত্রের সকল শেয়ার বিক্রির চুক্তি করেছে। চীনা কোম্পানি হিমালয়া এনার্জির সঙ্গে এই  চুক্তি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানিটি। তবে চুক্তির বিষয়টি সম্পর্কে জানে না বাংলাদেশের গ্যাস খাত পরিচালনাকারী রাষ্ট্রীয় সংস্থা পেট্রোবাংলা।

সংস্থাটি জানিয়েছে, এ চুক্তির বিষয়ে শেভরন তাদের পূর্বঅনুমতি নেয়নি। যদিও পেট্রোবাংলার সঙ্গে স্বাক্ষরিত উৎপাদন-অংশিদ্বারিত্ব চুক্তি (পিএসসি) অনুসারে শেয়ার হস্তান্তরের আগে অনুমতি নেওয়া বাধ্যতামূলক।

সোমবার শেভরন থেকে গণমধ্যম পাঠানো এক মেইল বার্তায় বলা হয়েছে, শেভরন বাংলাদেশের ব্লক-১২ তে থাকা বিবিয়ানা গ্যাস ক্ষেত্র এবং ব্লক ১৩ এবং ১৪ তে থাকা জালালাবাদ এবং মৌলভীবাজার গ্যাস ক্ষেত্রর শেয়ার বিক্রির জন্য হিমালয়া এনার্জির সঙ্গে চুক্তি করেছে। শেভরনের একজন কর্মকর্তা জানান, সোমবার বিকেলে কর্তৃপক্ষ তাদের (শেভরন কর্মীদের) কোম্পানি পরিবর্তনের বিষয়টি অবহিত করে। তাদের বলা হয়েছে কোম্পানির নতুন নাম হবে হিমালয়া।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পেট্রোবাংলা চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ বলেন, শেভরন তাদের শেয়ার বিক্রি বিষয়ে কিছু জানায়নি।

তবে শেভরনের কমিউনিকেশন ম্যানেজার শেখ জাহিদুর রহমান মেইল বার্তায় জানান, শেভরন তার শেয়ার বিক্রির প্রক্রিয়া সম্পর্কে সময় মতো বাংলাদেশ সরকারকে অবহিত করেছে।

এ বিষয়ে জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছেন, শেভরন চুক্তির বিষয়টি তাকে অবহিত করেছে। এ ক্ষেত্রে পেট্রোবাংলার অনুমোদন নেয়া প্রয়োজন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, সেটি তো চুক্তিতেই বলা আছে।

রয়টার্সের তথ্য মতে, দুই বিলিয়ন ডলারে হিমালয়ার সঙ্গে শেয়ার বিক্রির চুক্তি করেছে শেভরন। চীনের জ্বালানি মন্ত্রণালয় এই চুক্তি অনুমোদন করেছে বলে হিমলয়ার একজন মুখপাত্র রয়টার্সকে নিশ্চিত করেছে। হিমালয়া চীনের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান জিনহুয়া অয়েল ও বিনিয়োগ ফার্ম সিএনআইসি কর্পোরেশনের যৌথমালিকানাধীন একটি প্রতিষ্ঠান।

রয়াটার্স জানিয়েছে, এ চুক্তির মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার খনিজ সম্পদ খাতে চীনের বড় ধরনের বিনিয়োগ ঘটলো। গত বছর সম্পদ বিক্রির ঘোষণা দেওয়ার পর চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে শেভরন চীনের এই কোম্পানির সঙ্গে শেয়ার বিক্রির বিষয়ে একটি অনুস্বাক্ষর করে।

দেশের সব থেকে বেশি গ্যাস সরবরাহ আসে বিবিয়ানা গ্যাস ক্ষেত্র থেকে। বিবিয়ানা থেকে গত রোববার এক হাজার ১২৯ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হয়েছে। এছাড়া মৌলভীবাজার থেকে একই দিন ৩২ মিলিয়ন এবং জালালাবাদ থেকে ২৬৫ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হয়েছে। যা দেশের মোট গ্যাস সরবরাহের ৫৮ শতাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here