চার দিনেই পাকিস্তানের লর্ডস জয়

0
123

247557স্পোর্টস ডেস্ক: একদিন আগেই লর্ডস টেস্ট জিতে নিল পাকিস্তান। রোববার চতুর্থ দিনেই মিসবাহ-উল হকের দল ৭৫ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ইংল্যান্ডকে। সেইসঙ্গে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল তারা।

লর্ডস টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৩৩৯ রান করা পাকিস্তানের দ্বিতীয় ইনিংস থেমে যায় মাত্র ২১৫ রানেই। এর ফলে জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৮৩ রান। কিন্তু পাকিস্তানের বোলিং তোপে মাত্র ২০৭ রানেই গুটিয়ে যায় অ্যালিস্টার কুকের দল। এর ফলে বড় ব্যবধানের পরাজয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা।

পাকিস্তানকে জয় উপহার দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখেছেন ইয়াসির শাহ। প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেট নেওয়া এই লেগ স্পিনার দ্বিতীয় ইনিংসে লাভ করেন আরও ৪ উইকেট। দুই ইনিংসে ১০ উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডের ব্যাটিংয়ে ধ্বস নামান তিনি। যে কারণে ম্যাচ সেরার পুরস্কারটাও জিতে নেন পাকিস্তানের এই প্রতিভাবান বোলার।

লর্ডসে দুর্দান্ত বোলিং করা ইয়াসির শাহ ১৩ টেস্ট খেলে প্রতিপক্ষের ৮৬ উইকেট দখল করে নিয়েছেন। তার সামনে এখন নতুন মাইলফলকের হাতছানি। টেস্ট ক্রিকেটে দ্রুততম ১০০ উইকেট দখলের রেকর্ডটা ইংল্যান্ডের জর্জ লোম্যানের দখলে। মাত্র ১৬ টেস্টে অবিস্বরণীয় এই কীর্তি গড়েছিলেন তিনি। এবার সেই ১২০ বছরের রেকর্ড ভাঙতে যাচ্ছেন ইয়াসির। সেজন্য তার প্রয়োজন আর মাত্র ১৪ উইকেট।

তবে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতে ইয়াসির নয় ভয়ংকর রুপে আবির্ভাব হন রাহাত আলী। প্রথম সারির তিন ব্যাটসম্যানের উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডের মেরদণ্ডটাই যে ভেঙ্গে দেন তিনি! প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকদের শক্ত ভিত গড়ে দেওয়া অধিনায়ক কুককে সাজঘরে ফেরান ব্যক্তিগত ৮ রানেই। এরপর দলীয় ৪৭ রানে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান অ্যালেক্স হেলস (১৬) ও জো রুটকেও (৯)।

মাঝে কাটা হয়ে দাঁড়ানো জেমস ভিন্সের (৪২) উইকেট নিয়ে ইয়াসির শাহের উপর বাকী দায়িত্ব দিয়ে দেন ওয়াহাব রিয়াজ। আর ৪৩ রান করা গ্যারি ব্যালেন্সের উইকেট নিয়ে উৎযাপন শুরু করেন ইয়াসির। এরপর জনি বেয়ারস্ট্রো (৪৮), মঈন আলী (২) এবং ক্রিস ওকসের (২৩) উইকেটটাও তুলে নেন তিনি।

তবে ইংল্যান্ডের শেষ উইকেটটা নেন মোহাম্মদ আমীর। ৭৫.৫ ওভারে জেক বেলের উইকেট নিয়েই পাকিস্তানকে জয়োল্লাসে ভাসান নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে প্রথম টেস্ট খেলা আমীর। এর আগে ১ রান করা স্টুয়ার্ট ব্রডের উইকেটটাও নিজের করে নিয়েছিলেন তরুণ প্রতিভাবান এই পেসার।

লর্ডস টেস্ট

পাকিস্তান ইনিংস : ৩৩৯ এবং ২১৫।

ইংল্যান্ড ইনিংস : ২৭২ এবং ২০৭ (৭৫.৫ ওভারে)

ফলাফল : পাকিস্তান ৭৫ রানে জয়ী (চার ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল পাকিস্তান)।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : ইয়াসির শাহ (পাকিস্তান)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here