গ্যাস্ট্রিক সারাতে ১০ টি সহজ কৌশল

0
91

স্বাস্থ্য ডেস্ক: পৃথিবীর সকল মানুষ জীবনের কোন না কোন সময় অম্লতা বা অ্যাসিডের প্রতিপ্রবাহতে ভুগেছেন।কিছু ক্ষেত্রে, অনেকের এই সমস্যা প্রতিদিনের। এমনকি অনেকে এই সমস্যার সাথে প্রতিদিন লড়াই করে।অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ, মসলাযুক্ত খাবার, মদ অথবা ক্যাফেইন জাতীয় খাবার গ্রহণের ফলে এই অম্লতার সৃষ্টি হয়। এতে অনেক সময় বুকে জ্বালা-পোড়ার সৃষ্টি হয়। বিভিন্ন ডাক্তারি ঔষধ থাকলেও এ থেকে সম্পূর্ণ মুক্তি পাওয়া যায় না। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে এ থেকে প্রতিকার পেতে হবে।

এখানে কিছু উপায় জানানো হল, এতে আপনি প্রাকৃতিক উপায়ে গ্যাস্ট্রিকের সাথে লড়াই করতে পারবেন।
নারিকেলের পানি গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা দূর করে বুকের জ্বালা-পোড়া দূর করতে পারে।

ক্যাফেইন জাতীয় সকল পানীয় পরিহার করে সবুজ চা বা ভেষজ পানীয় পান করার অভ্যাস করুন।
প্রতিদিন এক গ্লাস দুধ অবশ্যই পান করুন।

আপনি যদি ধূমপায়ী হয়ে থাকেন, তাহলে অবশ্যই ধূমপান বন্ধ করুন।

আপনার খাদ্যতালিকা থেকে ঝাল ও মসলাযুক্ত খাবার ত্যাগ করুন।

কিছু সময় সময় পরপর খাবার গ্রহণ করুন এবং কম কম করে খাবেন। অনেক সময় না খেয়ে থাকার ফলে গ্যাস্ট্রিকের সৃষ্টি হয়।

পুদিনা পাতা প্রাকৃতিকভাবে পেট ঠাণ্ডা করতে পারে। পানিতে পুদিনা পাতা ভাল করে সেদ্ধ করে নিন। প্রতিবার খাওয়ার পর এক গ্লাস পুদিনা পাতার রস পান করুন।

বুকে ব্যথা দূর করার জন্য লবঙ্গের ব্যবহার করতে পারেন। একটি লবঙ্গ মুখে দিতেই বুঝতে পারবেন এর কার্যকারিতা।

খাদ্যতালিকায় মটরশুঁটি , কুমড়া , বাঁধাকপি , গাজর এবং পেঁয়াজ যোগ করুন।
রাতে ঘুমাতে যাবার অন্তত ২ থেকে ৩ ঘণ্টা আগে রাতের খাবার গ্রহণ করুন।

চুল পড়া বন্ধে পেঁয়াজের রসের কার্যকরী ব্যবহার
চুল পড়া বন্ধ করে নতুন চুল গজাতে আমরা নানা রকম পণ্য ব্যবহার করে থাকি। এই পণ্যগুলো নতুন চুল গজাতে না পারলে চুলের যথেষ্ট ক্ষতি করে থাকে। অথচ নতুন চুল গজাতে পেঁয়াজের রসের কোন বিকল্প নেই। পেঁয়াজের রস নতুন চুল গজানোর পাশাপাশি চুল পড়াও রোধ করে থাকে।

কিন্তু অনেকেই পেঁয়াজের রসের সঠিক ব্যবহার জানি না। আসুন জেনে নেই পেঁয়াজের রসের চার ব্যবহার যা চুল পড়া রোধ করে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here