গুয়ামে হামলায় অপেক্ষা করতে বললেন কিম

0
66

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল ও সেনা ঘাঁটি গুয়ামে হামলার বিষয়ে উত্তর কোরিয়ার সেনাদের অপেক্ষা করতে বললেন দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন। গতকাল মঙ্গলবার পিয়ংইংয়ে উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে এ নির্দেশ দেন কিম। খবর বিবিসির।

উ. কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ বলেছে, সেনা কমান্ডাররা এ দিন কিমের সামনে গুয়াম হামলার ছক তুলে ধরেন।

উত্তর কোরিয়া কী কী কৌশলে গুয়ামে আক্রমণ চালাবে, সে সম্পর্কেও কিমের সঙ্গে খোলামেলা আলোচনা করেন কর্মকর্তারা।

পরিকল্পনাটি দীর্ঘ সময় ধরে পরীক্ষা করে দেখেন কিম এবং ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে এটি নিয়ে আলোচনা করেন।

তবে তিনি হামলার সিদ্ধান্ত এখনও দেননি। কিন্তু যে কোনো সময় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর জন্য প্রস্তুত থাকতে সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন। কেসিএনের খবরে বলা হয়, বোকা-নির্বোধ যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি কর্মকাণ্ডের ওপর নজর রাখছে উত্তর কোরিয়া।

পিয়ংইয়ং ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী গতিবিধি-আচরণ পর্যবেক্ষণ করেই হামলার সিদ্ধান্ত নেবেন কিম। বৈঠকে কিম বলেন, পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে যুদ্ধে যেতে না চাইলে ওয়াশিংটনকে সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সেই সঙ্গে তিনি উত্তর কোরিয়ার সেনাবাহিনীকে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের জন্য সার্বক্ষণিকভাবে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন ।

এর আগে গত ১০ আগস্ট পিয়ংইয়ং ঘোষণা করে, চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে গুয়াম দ্বীপে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটিগুলোতে হামলা চালানোর চূড়ান্ত পরিকল্পনা তৈরি করা হয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী, পিয়ংইয়ং থেকে ৩ হাজার ২০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত গুয়াম দ্বীপ লক্ষ্য করে চারটি ‘হুয়াসং-১২’ ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সিদ্ধান্ত নেয় উত্তর কোরিয়া।

এদিকে কোরীয় উপদ্বীপে বাড়তে থাকা উত্তেজনায় উদ্বিগ্ন দক্ষিণ কোরিয়া কূটনৈতিক সমাধান খোঁজার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন সফররত যুক্তরাষ্ট্রে শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা জেনারেল যোসেফ ডানফোর্ডকে জানিয়েছেন, দক্ষিণ কোরিয়ার শীর্ষ অগ্রাধিকার শান্তি এবং এতেই দেশটির জাতীয় স্বার্থ নিহিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here