গুলশানের ঘটনায় রফতানিতে মারাত্মক প্রভাব পড়ার আশঙ্কা

0
127

imagesঢাকা: রাজধানীর গুলশানে একটি রেস্তরাঁয় হামলার ঘটনায় অর্থনীতি, বিশেষ করে বিনিয়োগ ও রফতানি বাণিজ্যে মারাত্মক প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ী ও অর্থনীতিবিদরা। তাদের অনুমান, এর প্রভাবে বিদেশীদের আনাগোনা আশঙ্কাজনক হারে কমে যেতে পারে। যেসব বিদেশী বায়ার বর্তমানে বাংলাদেশে অবস্থান করছেন তাদের অনেকে চলে যেতে পারেন। বিদ্যমান রফতানি আদেশ বাতিল না হলেও নতুন করে আদেশ দেয়ার ব্যপারেও বায়াররা বিভিন্ন দিক বিবেচনা করতে পারেন বলে অনুমান সংশ্লিষ্টদের।

বাংলাদেশ নিটওয়্যার প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতির (বিকেএমইএ) সহসভাপতি মোহাম্মদ হাতেম গতকাল নয়া দিগন্তকে বলেন, গুলশানের ঘটনায় আমরা খুবই উদ্বিগ্ন। এ ঘটনায় আমাদের কয়েকজন বায়ারও মারা গেছেন। এর মাধ্যমে সারা বিশ্বে বাংলাদেশ সম্পর্কে নেতিবাচক প্রচারণা হয়ে গেছে। আমি মনে করি কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে সেটি বের করা দরকার। সরকারকে অবশ্যই কঠোর হতে হবে। এমন ঘটনার সাথে সম্পৃক্তদের কঠোর হস্তে দমন করতে হবে। স্কুল-কলেজপর্যায়ে মোটিভেশন কার্যক্রম চালাতে হবে। আলেমদের কাজে লাগাতে হবে। ইসলাম যে এগুলো সমর্থন করে না সেটি তরুণসমাজকে বোঝাতে হবে। তার চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ, যে কারণে এসব হচ্ছে তার মূলে যেতে হবে।

পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মুনসুর এ প্রসঙ্গে বলেন, এ ঘটনায় আমাদের অর্থনীতিতে স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদে বিরূপ প্রভাব পড়বে। এর ফলে অনেক বিদেশী এ দেশ থেকে চলে যেতে পারেন। এতে তাদের সাথে এ দেশের বিনিয়োগও অন্য দেশে চলে যাবে। যার প্রভাব আমাদের অর্থনীতিতে পড়বে। আমাদের অর্থনীতির জন্য এটি একটি সতর্ক বার্তা। এখান থেকে বের হতে হলে সবাইকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসতে হবে বলেও মন্তব্য করেন এই অর্থনীতিবিদ।

এমন ঘটনা আমাদের দেশে ঘটবে চিন্তাও করতে পারিনি মন্তব্য করে বিজিএমইএ সহসভাপতি ফারুক হাসান বলেন, এর ফলে আমাদের অর্থনীতিতে একটি নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। সবচেয়ে তিগ্রস্ত হতে পারে বৃহত্তম পোশাক শিল্প। কারণ আমাদের তৈরী পোশাক শিল্প পুরোপুরি রফতানিনির্ভর। এখন বায়াররা এ দেশে আসার সময় তাদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কায় থাকবেন। আবার অনেক বায়ার অন্য দেশে পাড়ি জমাতে পারেন। ফলে রফতানির বড় বাজার হারাতে পারে বাংলাদেশ। জিম্মি করার ঘটনাটি আমাদের দেশের জন্য অনেক বড় সতর্ক বার্তা বলে মনে করেন এই ব্যবসায়ী নেতা।

রফতানিকারকদের ৪২টি সংগঠনের সমন্বয়ে গড়া ফেডারেশন এক্সপোর্টারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী এ প্রসঙ্গে বলেন, এমনিতেই আমরা গ্যাস-বিদ্যুৎসহ বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত। নতুন করে যে ভয়াবহতা সৃষ্টি হলো এতে আমাদের রফতানি বাণিজ্য মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। যেসব কারণে আমরা বিশ্ববাজারে ভালো করছিলাম তার একটি নিরাপত্তা পরিস্থিতি উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের প্রতিযোগী দেশগুলো এ ঘটনাকে আরো বড় করে বায়ারদের কাছে তুলে ধরার চেষ্টা করবে। সরকারের উচিত এ ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টদের ধরে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া। এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সে দিকে বিশেষ নজর দেয়ার আহ্বান জানান সালাম মুর্শেদী।