গুলবার্গ গণহত্যা: মোদিকে অব্যাহতির রায় বহাল

0
58

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: দাঙ্গা বাঁধিয়ে সংখ্যালঘু মুসলমানদের নৃশংসভাবে গণহত্যার এক মামলা থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ ৫৮ জনকে অব্যাহতির রায় বহাল রেখেছেন গুজরাটের হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি সোনিয়া গোকানি এ রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে বলা হয়, সুপ্রিমকোর্ট নিযুক্ত বিশেষ তদন্তকারী দল (‌সিট) মোদিসহ ৫৮ জনকে যে অব্যাহতি দিয়েছে; তা সঠিক সিদ্ধান্ত। এর ফলে নিম্ন আদালতের রায় বহাল থাকবে।

তবে দাঙ্গায় নিহত কংগ্রেসের সাবেক সংসদ সদস্য এহসান জাফরির স্ত্রী জাকিয়া জাফরি জানিয়েছেন, তিনি এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন।

গুজরাটের গোধরায় ২০০২ সালে ‘সবরমতি এক্সপ্রেস ট্রেনে’ আগুন লাগার ঘটনাকে পুঁজি করে দাঙ্গায় গুলবার্গ সোসাইটিতে মুসলমানরা গণহত্যার শিকার হয়।

ওই সময় সাবেক সংসদ সদস্য এহসান জাফরি নিহত হন। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় আসামি হন গুজরাটের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ বিভিন্ন রাজনীতিক ও সরকারি কর্মকর্তারা।

কিন্তু ‌সিট‌ জানায়, আসামিদের বিরুদ্ধে এমন কোনো তথ্যপ্রমাণ পাওয়া যায়নি, যাতে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয়।

এ কথা বলে ২০১২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি সিট তাদের তদন্ত বন্ধ করে দেয়। এর বিরুদ্ধে আহমেদাবাদের নগর দায়রা আদালতে আবেদন করেন জাকিয়া জাফরি।

২০১৩ সালের ডিসেম্বরে নগর দায়রা আদালত জাকিয়ার আবেদন খারিজ করে জানান, নতুন করে মামলার তদন্তভার সিটকে দেয়ার এখতিয়ার তাদের নেই।

পরে এই গণহত্যায় নরেন্দ্র মোদিসহ অন্যান্য অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ‘বৃহত্তর ষড়যন্ত্রের’ অভিযোগ করে ২০১৪ সালে গুজরাট হাইকোর্টে যান জাকিয়া জাফরি এবং সমাজকর্মী তিস্তা শীতলবাদের নেতৃত্বাধীন এনজিও সিটিজেন ফর জাস্টিস অ্যান্ড পিস।

পরে মামলার শুনানিতে হাইকোর্টে সিট জানান, ‘সুপ্রিমকোর্টের কঠোর নজরদারিতে’ তারা তদন্ত করেছেন। সব মহলে তাদের রিপোর্টের গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

বৃহস্পতিবারের রায়ে হাইকোর্ট জানান, ‘দাঙ্গায় কোনো বৃহত্তর ষড়যন্ত্র ছিল না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here