‘খালেদার হায়া লজ্জাও নেই’

0
113

motiya-chowdhuryঢাকা: আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, ‘খালেদা জিয়া আপনি সরকারের পতন ঘটাতে পারেন নি। আপনার পার্টিও পারেনি। আর আপনি এখন গুড়া পোলাপানদের হুকুম দিচ্ছেন। যে কোন মূল্যে সরকারের পতন ঘটাতে হবে। অনর্থক এই কোমল মতি বাচ্চাদের মাথা খাইয়েন না। মানুষের তো একটু হুশ জ্ঞান হয়। আপনার তো হায়া লজ্জাও নেই, ঘৃণা অপমানের জ্ঞান শক্তিও নেই।’

আজ মঙ্গলবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র রক্ষা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ‘আবার দেখলাম খালেদা জিয়া বক্তব্য দিয়েছেন শক্তি থাকলে হবে না। যে কোন মূল্যে সরকারের পতন ঘটাতে হবে। তো কি করবেন হামড়ি চিপায় দুমড়ি চিপায় লড়াই করেন গা, ঢাল নাই তলোয়ার নাই খামছি মারেন গা। কাজেই হুংকার বাদ দেন।’

বিএনপি আগামী নির্বাচনে আসতে বাধ্য উল্লেখ করে মতিয়া বলেন, ‘গণতন্ত্রের পথে আসেন। ২০১৯ সালের শেষে নির্বাচন হবে। সংবিধান অনুয়ায়ী সেই নির্বাচনে আপনি আসবেন। আসতে বাধ্য হবেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আপনার কি অবস্থা দেখেন। তারিখ দেন তারিখ রাখতে পারেননা। ৫ তারিখে সব কিছু নাকি আপনি কাপিয়ে দেবেন। এখন আবার ৭ তারিখে গেলেন কেন?ওই যে ৯২ দিন করে বাড়িতে ফিরে গিয়েছিলেন। আর এখন ৫ তারিখে হুংকার দিয়ে ৭ তারিখে গেছেন।’

খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সমালোচনা করে মতিয়া বলেন, ‘পদ্মা সেতু করার জ্ঞানই তো আপনার হয়নি। আপনি ৫ বছর ক্ষমতায় থেকে কিছুই করেননি। তত্ত্বাবধায়ক সরকারও কিছুই করে নি। শেখ হাসিনা ২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসে উদ্যোগ নিলো। আপনি তখন নানান কলকাটি নারলেন। আবার বিশ্ব ব্যাংক বললো দুর্নীতি হয়েছে। আমরা চ্যালেঞ্জ করেছিলাম।’

তিনি আরো বলেন, ‘দেশের মাটিতে না কানাডার মাটিতে পদ্মা সেতু দুর্নীতির রায় হয়েছে। সেই রায়ে পদ্মা সেতুতে কোন দুর্নীতি প্রমাণ করতে পারেনি। এখন আপনি অবার সাই ধরছেন পদ্মা সেতুতে নাকি দুর্নীতি হচ্ছে। আরে হাতি ঘোড়া গেল তল আর চামচিকা বলে কত জ্বল।’

যুবলীগ নেতাকর্মীদের উদ্যেশ্য করে মতিয়া বলেন, ‘বিএনপি হলো বিষধর সাপ। বিড়াল যদি বলে আমি ভাজা মাছ খাবো না, আর হায়ানা বলে আমি পচা লাশ খাবো না। তাদের বিশ্বাস করলে ঠকতে হবে। ৫ জানুয়ারি যুবলীগকে পাহারা দিতে হবে।’

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী ও সভা পরিচালনা করেন যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব মো. হারুনুর রশীদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here