কোরাম নিয়ে সংসদে হৈচৈ

0
131

7454-3ঢাকা: ‘দেশের জনগণ সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত করেছেন রাজনীতিকদের। সংসদে গিয়ে জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষা পূরণে দায়িত্ব পালনের জন্য। কিন্তু, ক্ষমতাসীন দল ও জোটের সাংসদদের সংসদে অনুপস্থিতির কারণে সংসদ কোরাম-সংকটের দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে দুই তিন মিনিট সংসদে হৈ -চৈ হয়।’

সোমবার জাতীয় সংসদে প্রেসিডেন্টের ভাষণের উপর আলোচনা করছিলেন ঢাকা-১৫ আসনের সংসদ সদষ্য কামাল আহমেদ মজুমদার। তার বক্তব্য শেষে কোরাম সংসদ বলে দাবি করে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য তাহজীব আলম সিদ্দিকী। তিনি বলেন, অধিবেশন কক্ষে ৫৬ জন সংসদ সদস্য উপস্থিত রয়েছেন।

সংসদের বিদান অনুসারে কমপক্ষে ৬০ জন সংসদ সদস্য অধিবেশন কক্ষে উপস্থিত না থাকলে কোরাম পূর্ন হবে না বলে বিবেচিত হবে।

তাহজীব আলমের দাবির প্রেক্ষিতে প্রধান হুইপ আ স ম ফিরোজ অধিবেশন কক্ষ থেকে তাতক্ষণিক বের হন। কয়েক মিনিটের ব্যবধানে তিনি অধিবেশন কক্ষে প্রবেশ করেন । তার সঙ্গে সঙ্গে আরো ৬-৭ জন সংসদ সদস্যকে প্রবেশ করতে দেথা যায়। এ সময় উপস্তিত সরকার দলীয় সংসদস্যরা উচ্চস্বরে বলতে থাকেন- আছে.. আছে.. (প্রয়োজনীয় সংখক সংসদ সদস্য অধিবেশন কক্ষে উপস্থিত আছেন)। এ সময় পুরো অধিবেশন কক্ষে সবাইকে একে অপরের সঙ্গে হাসি-ঠাট্টা করতে দেখা যায়। তখন ডেপুটি স্পিকারের নেতৃত্বে অধিবেশন চলছিল।

তিনি বলেন, কোরাম সংসকট হয়নি। প্রয়োজনীয় সংখ্যক এমপি উপস্থিত রয়েছেন। পরে বক্তব্য শুরু করেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, তখন সময় সোয়া আটটা। গত ২২ জানুয়ারী দশম জাতীয় সংসদের চর্তুদশ (শীতকালীন) অধিবেশন শুরু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here