কারাগার, বিমান, নৌ ও স্থলবন্দরে সতর্কতা

0
100

airport_security1_42397_1489769152ঢাকা: দেশের সব কেন্দ্রীয় ও জেলা কারাগার এবং বিমান, নৌ ও স্থলবন্দরে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি এসব স্পর্শকাতর স্থানে জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

শুক্রবার রাজধানীর আশকোনায় র‌্যাবের নির্মাণাধীন সদর দফতরে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনার পরপরই এ সতর্কতা জারি করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

জানতে চাইলে কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন্স) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন শুক্রবার বিকালে টেলিফোনে যুগান্তরকে বলেন, বিশেষ বার্তার মাধ্যমে দেশের সব কারাগারে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা জারি করা হয়েছে। বেলা ৩টা থেকে এ নির্দেশ কার্যকর করা হয়। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এটি বহাল থাকবে।

কারাসূত্র জানায়, সারা দেশে পাঁচ শতাধিক কারাবন্দি জঙ্গি আছে। নিরাপত্তা সতর্কতা জারির পর দেশের ১৩টি কেন্দ্রীয় কারাগার ও জেলা কারাগাগুলোতে আটক এসব জঙ্গি, শীর্ষ সন্ত্রাসী, গুরুত্বপূর্র্ণ ও স্পর্শকাতর মামলার আসামিদের বিশেষ নজরদারির আওতায় আনতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া দেশের সব কারাগারে বন্দির সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য আসা স্বজন ও আদালত থেকে আসা সব আসামির দেহ কঠোরভাবে তল্লাশি করা হচ্ছে।

আইজি প্রিজন্স ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন বলেন, রাজধানীর আশকোনায় জঙ্গির আত্মঘাতী হামলার পর কারাবন্দিদের সার্বিক সর্বোচ্চ নিরাপত্তা রক্ষায় সব কারাগারে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। যদিও বন্দির নিরাপত্তায় কারা কর্তৃপক্ষ সর্বদাই সতর্কাবস্থায় থাকে।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সহকারী পুলিশ সুপার তারিক আহমেদ যুগান্তরকে জানান, র‌্যাবের নির্মাণাধীন ভবনে আত্মঘাতী হামলার পর দুপুর ২টা থেকে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

বিমানবন্দর এলকায় তল্লাশি বাড়ানো হয়েছে। আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার বাড়তি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। অতিরিক্ত সিভিল টিম নিয়োগ করা হয়েছে। আর ক্রাইসিস রেসপন্স টিমকে সার্বক্ষনিক স্ট্যান্ডবাই রাখা হয়েছে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান তুহিন জানান, আশকোনার ঘটনার পর কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এ বিশেষ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

যুগান্তরের চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, ঢাকায় র‌্যাব ক্যাম্পে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় ঘটনার পর চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।

কারাগারের প্রবেশপথসহ ভেতরে-বাইরে নিরাপত্তায় নিজস্ব কারারক্ষী ছাড়াও মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ। অন্যদিকে বিমানবন্দরে ঢেলে সাজানো হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মজিবুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, কারাগারে সতর্ক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে।

শাহ আমানত বিমানবন্দরের উইং কমান্ডার রিয়াজুল কবির যুগান্তরকে বলেন, বিমানবন্দরে সব নিরাপত্তা বিদ্যমান থাকে। তারপরও নির্দেশনা পাওয়ার পর বিমানবন্দরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে।

যুগান্তরের গাজীপুর প্রতিনিধি জানান, রাজধানী ঢাকার আশকোনায় র‌্যাবের ক্যাম্পে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার পর গাজীপুরের পাঁচটি কারাগারে অতিরিক্ত সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এর সিনিয়র জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক বলেন, কারা কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কারাগারে অতিরিক্ত সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

গাজীপুরের কাশিমপুরে হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগার, কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার ১ ও ২, কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগার অবস্থিত। সবক’টি কারাগারেই এ অতিরিক্ত নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। এছাড়া গাজীপুর জেলা শহরে অবস্থিত জেলা কারাগারেও অনুরূপ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) সদস্য ভোলানাথ দে যুগান্তরকে জানান, দেশের সব নৌবন্দরে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বনের জন্য সংশি্লষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি আনসার ও আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here