কাতার সংকটে এরদোগানের কূটনৈতিক মিশনও ব্যর্থ

0
80

erdogan_53250_1501026401আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চলমান কাতার সংকট নিরসনে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগানের কূটনৈতিক মিশন ব্যর্থ হয়েছে। সংকট সমাধানে কূটনৈতিক মিশনে হাই-প্রোফাইল সফরকারীদের মধ্যে তুরস্কের এ নেতা ছিলেন পঞ্চম কোনো ব্যক্তি। কিন্তু তার এ মিশনও আপাতদৃষ্টিতে ব্যর্থ হয়েছে। সৌদি নেতৃত্বাধীন চার আরব দেশ ও কাতারের মধ্যকার দ্বন্দ্ব নিরসনে কুয়েত, সৌদি আরব ও কাতার সফর করেন তিনি। খবর ইন্ডিপেনডেন্টের।

সফরের শেষ পর্যায়ে গত সোমবার কাতারের রাজধানী দোহায় এসে পৌঁছান এরদোগান। এখানে কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানির সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। সোমবারের বৈঠকে এরদোগান ও শেখ তামিম কাতার সংকট সমাধানে কুয়েতের পদক্ষেপের প্রশংসা করেন। বৈঠকে দুই নেতা সন্ত্রাসবাদ নিরসনে যৌথ লড়াইয়ের বিষয়ে আলোচনা করেন। কাতারের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কিউএনএ জানিয়েছে, বৈঠকে দুই নেতা চরমপন্থা ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই নিয়ে আলোচনা করেন এবং দুই দেশের মধ্যকার অর্থনৈতিক ও সামরিক সহযোগিতার বিষয়টি পর্যালোচনা করেন। বৈঠকে শেখ তামিম চলমান সংকট নিরসনে সংলাপ ও কূটনৈতিক তৎপরতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

কাতার সফরের আগে তিনি কুয়েত ও সৌদি আরব সফর করেন। দু’দিনের সফর শেষে তুরস্কে ফিরে রাজধানী আঙ্কারায় এক সংবাদ সম্মেলনে এরদোগান বলেন, তার সফর উপসাগরীয় অঞ্চলে চলমান সংকটে সব পক্ষের মধ্যে পারস্পরিক আস্থা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হিসেবে ভূমিকা রাখবে। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, এরদোগান কিভাবে চলমান সংকটের সমাধান করতে চান তা পরিষ্কার নয়। কারণ তিনি নিজেই সরাসরি কাতারের পক্ষ নিয়েছেন। এ কারণে তুর্কি প্রেসিডেন্টকে সৌদি নেতৃত্বাধীন দেশগুলো বিশ্বস্ত মধ্যস্থতাকারী হিসেবে গ্রহণ করবে বলে মনে হয় না। এ সফরে সৌদি আরব থেকে কাতারে যাওয়ার সময় তিনি বিশেষ কোনো বার্তা নিয়ে গেছেন কিনা তাও স্পষ্ট নয়। গতকাল সংযুক্ত আরব আমিরাতের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনোয়ার গারগাশ সরাসরি বলেছেন, ‘এরদোগানের আঞ্চলিক এ সফরের কোনো মূল্য নেই। আঙ্কারা দ্রুত কাতারের পক্ষ নিয়েছে এবং এরদোগানের এ সফরে নতুন কিছু নেই। বড়জোর কাতারে তার এ সফরের পুনরাবৃত্তি ঘটবে।’

এর আগে তিনি সৌদি আরবে বাদশা সালমান ও তার ছেলে ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেন। কিন্তু সেই বৈঠকে তিনি কী অর্জন করেছেন তা নিয়ে কোনো বক্তব্য নেই এবং সৌদি গণমাধ্যমও এ নিয়ে তেমন কোনো খবর প্রকাশ করেনি। অবশ্য তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসোগলু সোমবার দোহা বৈঠকের পর বলেছেন, তার দেশ কূটনৈতিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে এবং কাতার ও সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের মধ্যে সরাসরি বৈঠক অনুষ্ঠানের চেষ্টা করছে। শিগগিরই এ ধরনের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here