ওয়াশিংটন ডিসিতে ৩০তম ফোবানার অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা

0
130

07162016_25_WASHINGTON_FOBANAনিউইয়র্ক : আসছে সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ তথা লেবার ডে উইকেন্ডে ওয়াশিংটন ডিসিতে অনুষ্ঠিত হবে ফোবানার ৩০তম বাংলাদেশ সম্মেলন। উল্লেখ্য, ৩০ বছর আগে এই সিটি থেকেই ফোবানা (ফেডারেশন অব বাংলাদেশী অর্গানাইজেশন্স ইন নর্থ আমেরিকা) এর যাত্রা শুরু হয়েছিল। প্রতিষ্ঠাকালিন সময়ের অনেকেই এবার তাদের স্মৃতিচারণ করবেন এবং পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে প্রবাসী বাংলাদেশীদের করণীয় সম্পর্কে আলোকপাত করবেন। যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডার শতাধিক সামাজিক-সাংস্কৃতিক-পেশাজীবী সংগঠনের নেতা-কর্মী ছাড়াও এ সম্মেলনে সপরিবারে অংশ নেবেন ৫ সহ¯্রাধিক বাংলাদেশী। প্রবাস প্রজন্মকে বাঙালি সংস্কৃতির সাথে জড়িয়ে রাখতে ফোবানার অপরিসীম ভ’মিকারও প্রকাশ ঘটবে এবারের সম্মেলনের বিভিন্ন পর্বে। আয়োজকরা জানিয়েছেন, মূলধারার রাজনীতিক ও ওবামা প্রশাসনের প্রতিনিধিরাও থাকবেন সম্মেলনের আলোচনায়। বাংলাদেশের খ্যাতনামা লেখক, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, জনপ্রিয় শিল্পী, অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও থাকবেন আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে। প্রবাসে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ নৈপূন্য প্রদর্শনকারীরাও সম্মানীত হবেন এ সম্মেলনে।

এ সম্মেলনের প্রস্তুতি নিয়ে গত ১৫ জুলাই শুক্রবার সন্ধ্যায় মেরিল্যান্ড রাজ্যে ফোবানার ফাইন্যান্স কমিটির উপদেষ্টা কবির পাটোয়ারী ও সাংস্কৃতিক কমিটির সদস্য পারভীন পাটোয়ারীর বিশেষ সহায়তায় এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন সম্মেলনের হোস্ট কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ আলমগীর এবং পরিচালনা করেন সম্মেলনের কনভেনর এটি এম আলম। সভায় সম্মেলনের সভাপতি আলমগীর যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে ৩০তম ফোবানা সম্মেলনকে একটি ঐতিহাসিক সম্মেলন উল্লেখ করে বলেন, ওয়াশিংটনের মাটিতে এই ফোবানার জন্ম হয়েছে। ৩০ বছর পর আবারো ফোবানা ওয়াশিংটনে ফিরে এসেছে।’ তিনি বলেন, ‘এ কারণে সম্মেলনকে ঘিরে পুরো ওয়াশিংটন মেট্রবাসী আজ ঐক্যবদ্ধ। সবাই আজ পরস্পরের সহযোগী হয়ে কাজ করে যাচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘যে সকল গুণীজন এই ফোবানা সৃষ্টি করেছিলেন তারাও আজ ফোবানার সাথে জড়িত হয়ে একটি সফল বাংলাদেশ সম্মেলন উপহার দেয়ার জন্য সর্বাতœক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।’

কনভেনর এটিএম আলম বলেন, ‘একটি সুন্দর সিস্টেমেটিক এবং ঐতিহাসিক সম্মেলন উপহার দেয়ার জন্য পুরো ওয়াশিংটনবাসী আজ ফোবানার ছায়াতলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করছেন। সম্মেলনে সেমিনার, সায়েন্স ফেয়ার, প্যারেড, ম্যারাথন, ইয়ুথ ফোরাম, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, চিত্র প্রদর্শনীসহ নানা আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে।’ তিনি বলেন যে, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানকে জাকজমক করার জন্য নাটিকা মঞ্চস্থ ও স্থানীয় জনপ্রিয় শিল্পীদের সমাগম ঘটানোর প্রয়াস চলছে। এছাড়াও দেশের জনপ্রিয় নৃত্যশিল্পী, অভিনয় শিল্পী, গায়ক-গায়িকাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সম্মেলনে কবি-সাহিত্যিক- সাংবাদিক-বুদ্ধিজীবী, রাজনীতিবিদ সহ নানা শ্রেণীর গুণীজনকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এ সভায় সম্মেলনের জন্যে বিভিন্ন সাব কমিটির চেয়ারম্যানগণ তাদের কাজের অগ্রগতির বিবরণ উপস্থাপন করেন।

সম্মেলনের সদস্য সচিব নুরল আমিন, লিয়াঁজু কমিটির চেয়ারম্যান আকতার হোসাইন, সাংস্কৃতিক কমিটির চেয়ারম্যান আবু রুমি, স্যুভেনির কমিটির চেয়ারম্যান সাংবাদিক আনিস আহমেদ, ফাইন্যান্স কমিটির চেয়ারম্যান নাইম রহমান, সেমিনার কমিটির চেয়ারম্যান ড. ফাইজুল ইসলাম, হোটেল ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান ও চীফ কো-অর্ডিনেটর করিম সালাউদ্দীন, রেজিষ্ট্রেশন কমিটির চেয়ারম্যান রেদোয়ান চৌধুরী, সায়েন্স ফেয়ার কমিটির চেয়ারম্যান গোলাম মাওলা সহ অন্যরা তাদের কাজের সন্তোষজনক অগ্রগতি তুলে ধরেন।