এবার সংসদ সদস্যপদ হারাতে যাচ্ছেন বাদল!

0
330

জাসদের সাংসদ মঈনউদ্দিন খান বাদল সংসদ সদস্য পদ হারাতে যাচ্ছেন। মশাল প্রতীক ইনু পাওয়ার পরও সমঝতা না হওয়ায় তার সদস্য পদ হাড়াতে যাচ্ছেন। এনিয়ে চলছে নানা মহলে গুঞ্জন।

মঙ্গলবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাছে (চট্টগ্রাম-৮) আসনের সাংসদ মঈনউদ্দিন খান বাদলের সংসদ সদস্য পদ অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রামের শেখ শহীদ হোসেন নামের এক ব্যক্তির পক্ষে আইনজীবী লায়েকুজ্জামান মোল্লা এই নোটিশ পাঠান। নোটিশে তার সংসদীয় আসন শূন্য ঘোষণা চেয়ে নির্বাচনের পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।

নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে, নোটিশ গ্রহীতাদের মধ্যে মঈনউদ্দিন খান বাদল জাতীয় সংসদের আসন নং-২৮৫, চট্টগ্রাম ৮ থেকে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। দশম সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোটের দল জাসদ থেকে নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হন।

তবে গত ১২ মার্চ জাসদের জাতীয় কাউন্সিলে জাসদ দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়। যার একাংশের নেতৃত্বে আসেন হাসানুল হক ইনু এবং অপর অংশে রয়েছেন শরীফ নুরুল আম্বিয়া। আর শরীফ নুরুল আম্বিয়া অংশের কার্যকরী সভাপতি হয়েছেন বাদল। এরপর দলীয় প্রতীক মশাল প্রাপ্তি প্রশ্নে নির্বাচন কমিশনে শুনানি হয়। যেখানে ইনুর অংশ মশাল প্রতীক বরাদ্দ পান।

এ অবস্থায় বাদলের জন্য জাসদ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য পদে থাকা অবৈধ, বেআইনি ও বাংলাদেশ সংবিধানের বিরোধী। তাই প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে চট্টগ্রাম-৮ আসন শূন্য ঘোষণার আহ্বান জানানো হয়েছে নোটিশে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি জাসদ দুটি অংশে বিভক্ত হওয়ার পরে উভয় অংশ স্ব স্ব অংশকে মূল দাবি করে নির্বাচন কমিশনের কাছে নিজেদের অনুকূলে দলীয় নিবন্ধন ও প্রতীক বরাদ্দ চেয়ে চিঠি দেয়। একই সঙ্গে তারা দুই অংশই চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তাদের নিজ নিজ সমর্থিত প্রার্থীদের অনুকূলে দলীয় প্রতীক বরাদ্দেও ইসিকে পৃথক চিঠি দেয়।

নির্বাচন কমিশন জাসদের উভয় অংশকে ডেকে শুনানির ব্যবস্থা করে। শুনানি শেষে কমিশন হাসানুল হক ইনুকে দলের নিবন্ধন ও প্রতীক বরাদ্দের সিদ্ধান্ত দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here