‘এবার পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধে আইন’

0
158

14440703_1107305096014223_2892276500137027356_nঢাকা: পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, বর্তমানে বাংলাদেশে নারী পুরুষের সমান অধিকার দেওয়া হয়েছে, নারীদের মর্যাদা রক্ষা করতে যা দরকার তা আমরা করছি। আগামীতে আমরা শুধু নারী নিয়ে গবেষণা করব না। নারী পুরুষ উভয়কে নিয়ে গবেষণা করব। কারণ নারীরা যেমন পুরুষ কতৃক নির্যাতিত হয়, ঠিক তেমনি পুরুষরা বর্তমানে নারী কতৃক নির্যাতিত হচ্ছে।

রোববার রাজধানীর শেরে বাংলানগরে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়নের জন্য নারী পুরুষ উভয়ের সমান অধিকার থাকতে হবে। তাই নারী নির্যাতনের মত পুরুষ নির্যাতনে গবেষণা ও আইন করা হবে।

পরিসংখ্যান ব্যুরোর প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের ৮০ দশমিক ২ শতাংশ নারী স্বামীর হাতে নির্যাতনের শিকার হন। তবে নির্যাতনের এ হার আগের তুলনায় কমে এসেছে। ২০১১ সালে এ হার ছিল ৮৭ দশমিক ১ শতাংশ।

২০১১ সাল থেকে ২০১৫ সালের মধ্যেকার সময়ের তথ্য নিয়ে এ রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। মোট ২১ হাজার ৬৮৮ জন নারী এই জরিপে অংশ নেন।

বিবিএস প্রতিবেদনে বলা হয়, স্বামী ছাড়া অন্য সঙ্গী বা অভিভাবকের দ্বারা (সর্ট অব পার্টনার) ৭২.৬ শতাংশ নারী নির্যাতনের শিকার হন। ২০১১ সালে যার হার ছিল ৭৯.৪ শতাংশ।

এতে বলা হয়, এখনো স্বামীর নিয়ন্ত্রণের নামে ৫৭.৭ শতাংশ নারী নির্যাতিত হন। তবে ২০১৫ সালে তা কমে এসেছে। ২০১১ সালে এর হার ছিল ৭২.৬ শতাংশ।

এতে বলা হয়, নারী নার্যাতন বিরোধী আইন, ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার বা সরকারি নানা উদ্যোগের কথা বেশির ভাগ নারীই জানেন না।

পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক মোহাম্মদ আবদুল ওয়াজেদের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন- নারী ও শিশু প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, ইইউ অ্যাম্বাসেডর পিয়ারে মাদুরে প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here