উত্তর কোরিয়ায় হামলার চিন্তা বাদ দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র

0
87

untitled-14_289328আন্তর্জাতিক ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ায় সামরিক হামলার চিন্তা বাদ দেননি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শনিবার পিয়ংইয়ং নতুন করে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর ঘণ্টাখানেক পরই তিনি এ প্রতিক্রিয়া দেন। খবর রয়টার্স, ইনডিপেনডেন্ট ও সিএনএনের। সিবিএস চ্যানেলের ‘ফেস দ্য ন্যাশন’ অনুষ্ঠানে এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্পের কাছে জানতে চাওয়া হয়, উত্তর কোরিয়া নতুন করে পরমাণু পরীক্ষা চালালে তিনি সামরিক হামলার কথা ভাববেন কি-না।

জবাবে ট্রাম্প বলেন, ‘আমি জানি না। বলতে চাইছি, আমরা এ নিয়ে অবশ্যই ভাবব।’ ট্রাম্প তার ক্ষমতার প্রথম ১০০ দিন পূর্তি উপলক্ষে পেনসিলভানিয়ার হারিসবার্গে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালিতে অংশ নেওয়ার ঠিক আগে একটি কারখানা পরিদর্শনের সময় সাংবাদিকরা তার কাছে আবারও জানতে চান, তিনি উত্তর কোরিয়াকে কোনো বার্তা দিতে চান? জবাবে ট্রাম্প বলেন, ‘আপনারা শিগগিরই দেখতে পাবেন, তাই না?’ তার কাছে আবারও জানতে চাওয়া হয়, এর মানে সামরিক হামলা কি-না। তিনি তখনও ‘আপনারা শিগগিরই দেখতে পাবেন’ বলে মন্তব্য করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবমেরিন ডুবিয়ে দেওয়ার হুমকি উত্তর কোরিয়ার : দক্ষিণ কোরিয়া মোতায়েনকৃত মার্কিন সাবমেরিন ডুবিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে পরমাণু শক্তিধর দেশ উত্তর কোরিয়া। দেশটির ওয়েবসাইট উরমিনজোক্কিরির বরাত দিয়ে এই হুমকির খবর জানিয়েছে একাধিক পশ্চিমা মিডিয়া।

ওয়েবসাইটটিতে বলা হয়, ‘ইউএসএস মিশিগান একটু নড়াচড়ার চেষ্টা করলেই ডুবিয়ে দেওয়া হবে। ওই সাবমেরিনটি তখন সাগরতলের ভূতে পরিণত হবে, যা আর কোনোদিন উপরিতলে দেখা যাবে না। অনতিবিলম্বে কোরীয় উপদ্বীপ থেকে এই সাবমেরিন সরিয়ে নিতে হবে।’ ইউএসএস রণতরী কার্ল ভিনসনের সঙ্গে সম্প্রতি যুক্ত হয়েছে পরমাণু শক্তিধর সাবমেরিন ইউএসএস মিশিগান। রোববার থেকে মার্কিন বিমানবাহী রণতরীটি দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর সঙ্গে মহড়া দিচ্ছে। ওয়েবসাইটটিতে আরও বলা হয়, পরমাণু ক্ষমতাধর বিমানবাহী রণতরীই হোক আর সাবমেরিনই হোক, আমাদের অদৃশ্য সেনা শক্তি নিজস্ব পরমাণু শক্তি দিয়ে তাদের স্রেফ বাতিল লোহায় পরিণত করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here