উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরলের কারণে হতে পারে হাড়ের ক্ষয়

0
150

high-cholesterolযদি আপনার কোলেস্টেরলের মাত্রা বেশি থাকে তাহলে আপনার হাড়ের ঘনত্বের পরীক্ষা করানো উচিৎ। উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরল হৃদস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এটাই আমরা জানি। কিন্তু উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরল কার্ডিওভাস্কুলার সিস্টেমের ক্ষতি করার পাশাপাশি হাড়ের ক্ষতির জন্যও দায়ী। নতুন গবেষণায় জানা গেছে যে, উচ্চ মাত্রার কোলেস্টেরল শুধু হার্টের জন্যই নয় হাড়ের জন্যও ক্ষতিকর। গবেষণাটির বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নিই চলুন।

লস এঞ্জেনলস এর ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়ার (UCLC) করা এক নতুন গবেষণায় দেখানো হয়েছে উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরল ও অষ্টিওপোরোসিসের মধ্যে সম্পর্ক বিদ্যমান। শরীরের ইমিউন কোষ হাড়ের ক্ষয়ে যে ভূমিকা রাখে তা নির্ণয়েরও উপায় বের করেছেন তারা। গবেষণা প্রতিবেদনটি আগস্টের ২০ তারিখে ক্লিনিক্যাল ইমিউনোলজি নামক জার্নালে প্রকাশিত হয়। এই গবেষণাটির দ্বারা অষ্টিওপোরোসিসের চিকিৎসার নতুন পথ উন্মোচিত হতে পারে।

প্রায় ১০ মিলিয়ন আমারিকান অষ্টিওপোরোসিসে আক্রান্ত হন। এই রোগে হাড় ভঙ্গুর হয়ে যায় এবং হাড়ে ফাটল ধরার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও আক্রান্তদের চলাফেরার স্বাধীনতা কমে যায়।

UCLC এর ডেভিড গেফেন স্কুল অফ মেডিসিনের প্যাথলজির অধ্যাপক রিতা এফ্রোস ব্যাখ্যা করেন যে, “আমরা জানি যে অষ্টিওপোরোসিসের রোগীদের কোলেস্টেরলের মাত্রা বেশি থাকে, তাদের হৃদপিন্ডের ধমনীতে তীব্র বাধার সৃষ্টি হয় এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। আমরা এটাও জানি যে কোলেস্টেরল কমানোর ঔষধ হাড়ের ফাটল কমাতেও সাহায্য করে”।

অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনের কুইন্সল্যান্ড ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি এর একজন গবেষক ইন্দিরা প্রসাদাম বলেন, “তরুণাস্থি কোষ ও সংযোগ কলায় মাইটোকন্ড্রিয়াল অক্সিডেটিভ স্ট্রেস বৃদ্ধি করে উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরল এবং এদের মৃত্যু ঘটায়। পরিণামে অষ্টিওপোরোসিস হয়, এটা এক ধরণের আরথ্রাইটিস যা হাড়ের শেষ প্রান্তের নমনীয় টিস্যু নষ্ট হওয়ার কারণে হয়”। প্রসাদাম এবং তার দল মানুষের হাইপারকোলেস্টেরোলেমিয়ার অনুরূপ ২ টি জীবকে মডেল হিসেবে ব্যবহার করেন। প্রথমটি ছিলো একটি নেংটি ইঁদুর যার মধ্যে পরিবর্তিত জিন অ্যাপোলিপোপ্রোটিনই ছিলো যা তাকে হাইপারকোলেস্টেরেমিক হিসেবে তৈরি করে। অন্য মডেলটি ছিলো একটি ইঁদুর যাকে উচ্চ কোলেস্টেরল সম্পন্ন খাবার খাওয়ানো হয়, যার ফলে খাদ্য প্রবর্তিত হাইপারকোলেস্টেরোলেমিয়া হয়।

উভয় মডেলকেই উচ্চ মাত্রার কোলেস্টেরল সৃষ্টিকারী খাবার খাওয়ানো হয় বা স্বাভাবিক খাদ্য নিয়ন্ত্রণ করা হয়। তারপর উভয় মডেলকেই সার্জারি করা হয়। স্বাভাবিক খাদ্য খাওয়ানো হয় যাদের তাদের তুলনায় যাদের উচ্চ মাত্রার কোলেস্টেরল সৃষ্টিকারী খাবার খাওয়ানো হয় তাদের হাড়ে মারাত্মক ধরণের অষ্টিওআরথ্রাইটিস বিকাশ লাভ করতে দেখা যায়।

নেংটি ইঁদুর ও ইঁদুর উভয়কেই কোলেস্টেরল কমানোর ঔষধ দেয়া হয়। এর ফলে  অষ্টিওআরথ্রাইটিসের বৃদ্ধি কমার লক্ষণ দেখা যায়। প্রসাদাম বলেন, আমাদের দলটি পুষ্টিবিদদের সাথে কাজ করছে মানুষকে স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার বিষয়ে এবং কীভাবে কোলেস্টেরলের মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় যাতে জয়েন্ট ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সে বিষয়ে শেখানোর জন্য। এই গবেষণা প্রতিবেদনটি FASEB  জার্নালে প্রকাশিত হয়।