ইসরাইলি হামলায় কাঁপল দামেস্কের বিমানবন্দর

0
75

israel_45860_1493334913আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। বৃহস্পতিবার ওই এলাকায় লেবাননি গোষ্ঠী হিজবুল্লাহর নিয়ন্ত্রণাধীন একটি অস্ত্রাগারে এই হামলা চালানো হয়েছে।

স্থানীয় এক গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, হামলার লক্ষ্যস্থল অস্ত্রাগারটিতে ইরানের সরবরাহ করা অস্ত্র মজুত করা হতো।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, দামেস্ক থেকে ২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বের ওই ঘটনাস্থলে বিস্ফোরণের পর আগুন জ্বলতে দেখা গেছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক গোষ্ঠী সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানায়, দামেস্ক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে বড় ধরনের বিস্ফোরণ ঘটেছে। অবজারভেটরির প্রধান রামি আব্দেল রহমান বলেন, ‘বিস্ফোরণটি ব্যাপক ছিল এবং দামেস্ক থেকেও এর আওয়াজ শোনা গেছে।’

হিজবুল্লাহ পরিচালিত আল মানার টেলিভিশনের খবরে বলা হয়, ইসরাইলি বিমান হামলায় বিস্ফোরণটি ঘটে থাকতে পারে। বিস্ফোরণে শুধু বস্তুগত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কোনো প্রাণহানি হয়নি বলে দাবি করেছে আল মানার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গোয়েন্দা সূত্রের তথ্যমতে, ইরানের বাণিজ্যিক ও সামরিক পরিবহন বিমানগুলো নিয়মিতভাবে হিজবুল্লাহর ওই গুদামের জন্য উল্লেখযোগ্য পরিমাণ অস্ত্রের চালান নিয়ে আসে।

ইরান সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বিশ্বস্ত আঞ্চলিক মিত্র। ওই অস্ত্রের গুদাম থেকে সিরিয়ায় যুদ্ধরত ইরান সমর্থিত বেসামরিক বাহিনীগুলোকে হিজবুল্লাহর তত্ত্বাবধানে অস্ত্র সরবরাহ করা হয়।

ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ সরাসরি হামলা চালানোর দায় স্বীকার করেনি; তবে হামলাটি তাদের ‘নীতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ’ বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির গোয়েন্দা মন্ত্রী ইসরাইল কাতজ। এর আগেও বেশ কয়েকবার হিজবুল্লাকে পাঠানো অস্ত্রের চালান লক্ষ্য করে সিরিয়ায় বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল।

২০১১ সাল থেকে সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ চলছে। যুদ্ধের জেরে এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন শিশুসহ তিন লাখের বেশি মানুষ। বাস্তুচ্যুত হয়েছেন আরও কয়েক লাখ সিরিয়ান। গত ৬ বছরে এ যুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়াসহ আন্তর্জাতিক পক্ষগুলো। যুদ্ধ নিরসনে রাজনৈতিক উদ্যোগ সফলতার মুখ দেখেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here