ইংল্যান্ডের জয়ে সেমিতে বাংলাদেশ

0
115

UOqKX7_2স্পোর্টস ডেস্ক: কোনো রকম ভয় ছিলো না ইংল্যান্ডের। প্রথম দল হিসেবে শেষ চারে আগেই পা রেখেছে দলটি । আজকের ম্যাচটি নিয়ে ব্যাপক ভয়ে ছিল অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশ। বৃষ্টিতে ম্যাচ ভেসে গেলে বা ইংল্যান্ডের কাছে হারলে তাদের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আশা একেবারেই শেষ অস্ট্রেলিয়ার । বাংলাদেশের টেনশন আবার অস্ট্রেলিয়ার জয় নিয়ে। ইংল্যান্ডের হার মানে বাংলাদেশের স্বপ্ন শেষ। কিন্তু না, স্বপ্ন শেষ হয়নি বাংলাদেশের। কোন ভাবেই জিততে পারেনি অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ডের কাছে (বৃষ্টি আইনে) ৪০ রানের হৃদয় ভাঙা হারে বিদায় হয়ে গেছে অজিদের। আর স্বপ্নের সেমিফাইনালে ওঠে গেছে টাইগাররা।

বার্মিংহামে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া ৯ উইকেটে ২৭৭ রান সংগ্রহ করে। জবাবে ৪০.২ ওভারে ইংল্যান্ড যখন ৪ উইকেট জয়ের পথে, ঠিক তখন শুরু হয় বৃষ্টি। পরে আর খেলা মাঠে না গড়ায়নি।ইংল্যান্ড এগিয়ে থাকার সুবাদে বৃষ্টি আইনে ৪০ রানে ম্যাচ জিতে নেয় । সঙ্গে সঙ্গে ইংল্যান্ডের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে উঠে যায় বাংলাদেশ।

অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ৬৪ বলে ৭১ রান করে অপরাজিত থাকেন হিড। ফিঞ্চ ৬৪ বলে করেন ৬৮। অধিনায়ক স্মিথ করেন ৫৬। হিড অপরাজিত থাকেন রানে। ইংল্যান্ডের পক্ষে উড ও আদিল রশিদ চারটি করে উইকেট নেন।

এদিন ইংল্যান্ডের ব্যাটে ঝড় তুললেন মরগান-স্টোকস। ১৫৯ রানের জুটি। ৮১ বলে ৮৭ রান করে রান আউট না হলে সেঞ্চুরিটা হয়তো মিস হতো না মরগানের। মরগানের মিস হলেও মনে রাখার মতো সেঞ্চুরি করেছেন অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। ১০৮ বলে সেঞ্চুরি, আর ১০২ রানে অপরাজিত।

ব্যাটলার অপরাজিত থাকেন ২৯ রানে। জয়ের একেবারে নিকটেই দাঁড়িয়ে ছিলেন তারা। বৃষ্টি ফিনিশিংটা দিতে না দিলেও জয়টা শতভাগ ইংল্যান্ডেরই প্রাপ্য ছিল। এবং সেটাই হয়েছে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

অস্ট্রেলিয়া : ৫০ ওভারে ২৭৭/৯ (হিড ৭১*, ফিঞ্চ ৬৮, স্মিথ ৫৬; উড ৪/৩৩, আদিল রশিদ ৪/৪১)

ইংল্যান্ড: ৪০.২ ওভারে ২৪০/৪ ( স্টোকস ১০২*, মরগান ৮৭, বাটলার ২৯*; হ্যাজলউড ২/৫০, স্টার্ক ১/৫২ )

ফলাফল : ইংল্যান্ড ৪০ রানে জয়ী (ডি/এল পদ্ধতিতে)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here