আ’ লীগ জোর করে ক্ষমতায় থাকার নীলনকশা করছে: মির্জা ফখরুল

0
84

002_289439ঢাকা: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ তাদের অবৈধভাবে উপার্জিত অর্থ-সম্পদ রক্ষা করতেই জোর করে ক্ষমতায় থাকার নীলনকশা করছে।’

আন্তর্জাতিক মহান মে দিবস উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল সোমবার নগরীতে শোভাযাত্রা বের করে। শোভা যাত্রার পূর্বে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই,  দেশের জনগণ জোর করে ক্ষমতায় থাকা কখনই মেনে নেবে না। দেশবাসী কখনই আওয়ামী লীগকে তাদের নীলনকশা বাস্তবায়ন করতে দেবে না।’

সরকারের ‘নীলনকশা’ থেকে উত্তরণ ঘটাতে হলে জনগণের নির্বাচিত সরকার প্রতিষ্ঠা করতে দেশবাসীকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাম্প্রতিক বক্তব্যের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এক অনুষ্ঠানে উনি (ওবায়দুল কাদের) বলেছেন, আজ যে আয়-রোজগার করছেন সেই আয় নিয়ে পালাতে পারবেন না, যদি আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আজকে তারা স্বীকার করেছেন যে, তারা অবৈধ উপায়ে যে অর্থ উপাজর্ন করছে, তাদেরকে জোর করে হলেও ক্ষমতায় টিকে থাকতে হবে।’

প্রসঙ্গত,  শনিবার চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের এক প্রতিনিধি সভায় ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ক্ষমতা বেশি দিন থাকে না। অনুরোধ করি, ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না। এটা আমানত। টাকা পয়সা বেশিদিন থাকবে না। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকলে টাকা-পয়সা নিয়ে পালাতে হবে।’

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘আজও শ্রমজীবী মানুষ তাদের ন্যায্য অধিকার ফিরে পায়নি। তাদের কর্মক্ষেত্র নিরাপদ নয়। প্রতি বছর হাজার হাজার মানুষ কর্মক্ষেত্রে মারা যাচ্ছে। প্রতিদিন বয়লার বিস্ফোরণ, শিপইয়ার্ডে আমাদের শ্রমিকরা মারা যাচ্ছে। জাতীয় মজুরি কমিশন ঘোষণা করা হয় নাই।’

সকাল পৌনে ১১ টায় শ্রমিক দলের শোভাযাত্রাটি নয়া পল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বের করে কাকরাইল হয়ে শান্তিনগর মোড় ঘুরে আবার নয়াপল্টনের গিয়ে শেষ হয়।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসাইন। অন্যদের মধ্যে শোভাযাত্রায় অংশ নেন  বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী,যুগ্ম মহাসচিব ও মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিবউন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম খান নাসিম, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আবুল কালাম আজাদ, মেহেদি আলী খান, মোস্তাফিজুল করীম, মঞ্জরুল ইসলাম মঞ্জু, আসাদুজ্জামান বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম  মোশাররফ হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসান, সহসভাপতি মুন্সি বজলুল বাসিত আনজু প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।