আ’ লীগ ক্ষমতায় না থাকলে টাকা-পয়সা নিয়ে পালাতে হবে: ওবায়দুল

0
117

004_288928চট্টগ্রাম ব্যুরো: আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দলীয় নেতাকর্মীদের সতর্ক করে বলেছেন, ‘ক্ষমতা বেশি দিন থাকে না। তাই ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না। এটা ভালো নয়। এখন যে টাকা-পয়সা রোজগার করছেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকলে সেই টাকা নিয়ে পালিয়ে বেড়াতে হবে।’

শনিবার চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

হেফাজত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কওমি মাদ্রাসার সনদকে সরকার কেবল স্বীকৃতি দিয়েছে। হেফাজতের সঙ্গে আমরা কোনো জোট করিনি, চুক্তিও করিনি। একটা শিক্ষা ব্যবস্থাকে শিক্ষার মূল ধারায় নিয়ে এসেছি, স্বীকৃতি দিয়েছি। স্বীকৃতি দেওয়া ও জোট করা এক কথা নয়।’

নগরীর পাঁচলাইশে কিং অব চিটাগাং কমিউনিটি সেন্টারে এই প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীনের মধ্যে চলমান বিরোধ নিয়েও খোলামেলা কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘হেফাজতকে দিয়ে বিএনপি-জামায়াত ৫ মে আরেকটি শাপলা চত্বর সৃষ্টির পরিকল্পনা করেছিল; কিন্তু শেখ হাসিনার কৌশলের কাছে সেই খায়েশ চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘কওমি মাদ্রাসার লাখ লাখ ছাত্র। তাদের কোনো ঠিকানা নাই, ভবিষ্যৎ নাই। তারা চাকরি পাবে- এমন কোনো গ্যারান্টিও নাই। তাই তাদের আমাদের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থার মধ্যে ফিরিয়ে এনে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে।’

মহিউদ্দিন চৌধুরীকে উদ্দেশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মহিউদ্দিন ভাই, নাছির (আ জ ম নাছির উদ্দীন) আপনার ছেলের মতো। সে যদি ভুল করে থাকে তাহলে তাকে ঘরে ডেকে নিয়ে শাসন করবেন। কিন্তু ঘরের কথা কি এভাবে পরকে বলা যায়?’

অসুস্থ প্রতিযোগিতা রাজনীতির জন্য শুভ নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের সমস্যা হচ্ছে, আমরা কেউ ধৈর্য ধরতে পারি না। এখানে (চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগে) কাদা ছোড়াছুড়ি হয়েছিল। অনেকে বলে, ঢাকার হস্তক্ষেপে নাকি এসব বন্ধ হয়েছে, সমাধান হয়েছে। কিন্তু আমি বলছি, মহিউদ্দিন ভাই নিজেই এই সমস্যার সমাধান করেছেন।’

মহিউদ্দিন চৌধুরীকে উদ্দেশ করে তিনি আরও বলেন, ‘আপনি যদি মুরুব্বির ভূমিকায় থাকেন তাহলে এখানে হস্তক্ষেপ করার দরকার নেই।’

নেতাকর্মীদের সতর্ক করে বলেন, ‘ক্ষমতা বেশি দিন থাকে না। তাই ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকলে টাকা-পয়সা নিয়ে পালিয়ে বেড়াতে হবে।’

হাওর নিয়ে বিএনপির বক্তব্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তারা বলছে, আমরা নাকি হাওরে লুটপাট করছি। আসলে তাদের মনে অনেক জ্বালা। ক্ষমতায় থাকলে হাওরে গিয়ে তারা লুটপাটের আসর বসাতে পারত।’

বিএনপি নেতারা ঘরে বসে বসে ফেসবুকে মিথ্যাচারের রেকর্ড বাজাচ্ছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় সম্মানিত অতিথি ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম, ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, এমএ লতিফ এমপি, সাবিহা মুসা এমপি।

সভায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘দলে নেতাকর্মীদের মধ্যে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব থাকতে পারে। তবে সেটা আমরা বসে ঠিক করব। ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করলে কেউ আমাদের ঠেকাতে পারবে না।’

মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, ‘আপনারা (বিএনপি) নির্বাচনে আসেননি। সেটা আপনাদের ভুল ছিল। নিজেরা ভুল করে জনগণের ওপর দায় চাপাচ্ছেন। এবারের নির্বাচনে না এলে তারা রাজনীতির আঁস্তাকুড়ে চলে যাবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here