আকার বাড়ছে মন্ত্রিসভার, মঙ্গলবার শপথ

0
64
নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, মোস্তাফা জব্বার, শাহজাহান কামাল ও কাজী কেরামত -ফাইল ছবি

নতুন যুক্ত হচ্ছেন মোস্তাফা জব্বার, কাজী কেরামত ও শাহজাহান কামাল; পদোন্নতি পাচ্ছেন নারায়ণ চন্দ্র চন্দ

সরকারের মেয়াদের শেষ বছরে আরেক দফায় আকার বাড়ছে মন্ত্রিসভার। অন্তত আরও তিনজন নতুন মন্ত্রী নেওয়া হচ্ছে। পদোন্নতি পেতে পারেন কয়েকজন। কয়েকজন মন্ত্রীর দপ্তর রদবদলেরও সম্ভাবনা রয়েছে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বঙ্গভবনে মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের শপথ করাবেন।

মন্ত্রিসভায় ডাক পাওয়াদের মধ্যে রয়েছেন- বিশিষ্ট প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মোস্তাফা জব্বার, রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী ও লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের এমপি এ কে এম শাহজাহান কামাল। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দকে এই মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রী করা হতে পারে। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হকের মৃত্যুর পর থেকে তার পদটি শূন্য রয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এই চারজনকে আজ সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বলে তারা বলেছেন।

২০১৫ সালের ১৪ জুলাই মন্ত্রিসভায় সর্বশেষ তিনজনের অন্তর্ভুক্তি ও দু’জন প্রতিমন্ত্রী থেকে মন্ত্রী হয়েছিলেন। এরপর প্রায় আড়াই বছর মন্ত্রিসভায় কোনো রদবদল হয়নি। তবে গত কিছুদিন ধরে মন্ত্রিসভায় রদবদল নিয়ে নানা গুঞ্জন চলে আসছে। এমন অবস্থায় গতকাল নতুন বছরের শুরুর দিনে মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্তি ও পদোন্নতির খবর পাওয়া গেছে। বর্তমানে মন্ত্রিসভার সদস্য ৫০ জন।

এদিকে মন্ত্রিসভায় নতুন অন্তর্ভুক্তি ও পদোন্নতির খবর জানাজানির পর নানা আলোচনা শুরু হয়েছে। বিশেষ করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা নানা বিচার-বিশ্নেষণ শুরু করেছেন। মন্ত্রিসভার সদস্যদের কেউ কেউ সম্ভাব্য রদবদলের খবরে কিছুটা দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। আবার কেন্দ্রীয় নেতাদের কেউ কেউ নতুন করে হতাশ হয়েছেন।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্র জানায়, নতুন মন্ত্রীদের মধ্যে মোস্তাফা জব্বার টেকনোক্র্যাট কোটায় মন্ত্রী হতে পারেন। তাকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে। প্রতিমন্ত্রী হতে পারেন কাজী কেরামত আলী ও এ কে এম শাহজাহান কামাল।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী খুলনা-৫ আসনে তিনবারের এমপি নারায়ণ চন্দ্র চন্দ সমকালকে বলেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব তাকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে উপস্থিত থাকার জন্য ফোন করেছিলেন। তাকে শপথ নিতে ডাকা হচ্ছে বলে নিশ্চিত হয়েছেন। তবে তাকে কোন দপ্তর দেওয়া হবে, সে বিষয়ে নিশ্চিত কিছু বলতে পারেননি তিনি।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বিসিএস) সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, তাকে মন্ত্রিসভায় শপথ নেওয়ার ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। তবে কোন মন্ত্রণালয় দেওয়া হচ্ছে, তা বলা হয়নি।

সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ও রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কেরামত আলী বলেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব তাকে ফোন করেছিলেন। তাকে মঙ্গলবার বঙ্গভবনে যাওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তবে কোন দপ্তর দেওয়া হবে, তা তিনি জানেন না। তিনি রাজবাড়ী-১ আসনে চারবারের এমপি।

লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এ কে এম শাহজাহান কামাল বলেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব তাকে ফোন করে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বঙ্গভবনে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করেছেন। তবে তিনি কোন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাচ্ছেন, তা নিশ্চিত হতে পারেননি।

এদিকে, মঙ্গলবার কয়েকজনের শপথ নেওয়া ছাড়াও মন্ত্রিসভায় আরও কিছু রদবদল আসতে পারে বলে ব্যাপক গুঞ্জন রয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব কোনো মন্তব্য করেননি। তবে আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা বলেন, একাদশ সংসদ নির্বাচনের দিনক্ষণ এগিয়ে আসছে। তাই নানা কারণে বিভিন্ন সময়ে বিতর্কিত হয়েছেন, এমন দু-একজনকে বাদ দিয়ে নতুন কয়েকজনকে মন্ত্রিসভায় আনা হতে পারে। কারও কারও দপ্তর বদলের সম্ভাবনাও রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here