আওয়ামী লীগকেও জনগণ এক কাপড়ে বের করবে: খালেদা জিয়া

0
78

see_299036ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার যাকে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দিচ্ছে। মওদুদ আহমদ ৩০ বছর ওই বাড়িতে আছেন, তাকেও রাস্তায় বের করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, আমি যে বাড়িতে ৪০ বছর বসবাস করেছি, সেই বাড়ি থেকে আমাকেও এক কাপড়ে বের করে দেওয়া হয়েছিল। এই আওয়ামী লীকেও একদিন দেশের জনগণ এক কাপড়ে তাদের বাড়ি-ঘর থেকে বিদায় করবে।

বুধবার বিকেলে এসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের (এ্যাব) ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন।

রাজধানীর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টার সিটি’র পুষ্পগুচ্ছ হল রুমে এই ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ও দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান।

খালেদা জিয়া বলেন, আজকে আমরা এতো অসহায়, এতো অত্যাচার-জুলুম হচ্ছে। তারজন্য যে বিচার চাইব, বিচারের জন্য কোর্টে গেলেও বিচার নাই। কারণ সেখানেও আওয়ামী লীগের কাধা।

তিনি বলেন, দেশের অবস্থা মোটেও ভালো না। যারা গায়ের জোরে পুলিশের বিভিন্ন সংস্থা ব্যবহার করে ক্ষমতায় বসে আছেন, তারা কখনো মানুষের দুরবস্থার দিকে নজর দেবে না। এই সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষ কখনো ভালো থাকতে পারবে না, ভালো খেতে পারবে না। আওয়ামী লীগ মিথ্যা কথা বলে ক্ষমতায় টিকে আছে। দেশের বেশির ভাগ মানুষ বেকার।

প্রস্তাবিত বাজেটের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এবারের বাজেটে ক্ষমতাসীনরা লাভবান হবেন, আর ক্ষতিগ্রস্ত হবেন দেশের মানুষ। প্রশাসনে চলছে দুনীতি ও লুটপাট। জবরদখল করে ক্ষমতায় টিকে আছে আওয়ামী লীগ সরকার।

খালেদা জিয়া বলেন, আগামী নির্বাচন কোনো দলীয় সরকারের অধীনে হবে না। মানুষ চায় পরির্বতন। আগামী দিনের নির্বাচন যেন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ হয় তা চায়।

নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বিনা ভোটে নির্বাচিত সরকারের চাটুকারিতা না করে, জনগণের চাহিদা অনুযায়ী সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। আগামীতে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি করুন।

মূল মঞ্চে খালেদা জিয়ার সঙ্গে ইফতারে অংশ নেন এ্যাবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আমীর খসুর মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সেলিমা রহমান, খন্দকার মাহবুব হোসেন, ড্যাব এর এজেডএম জাহিদ হোসেন, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শওকত মাহমুদ, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মাহবুবউল্লাহ, অধ্যাপক আফম ইউসুফ হায়দার, প্রকৌশলী আনহ আখতার হোসেন, প্রকৌশলী রিয়াজুল ইসলাম রিজু, এ্যাবের ভারপ্রাপ্ত সদস্য সচিব হাছিন আহমেদসহ পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ।

এছাড়াও ইফতার মাহফিলে অংশ নেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, ইসমাইল জবিউল্লাহ, অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া, মেজর (অব.) কামরুল ইসলাম, ফরহাদ হালিম ডোনার, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, মামুন আহমেদ, আবদাল আহমেদ, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, প্রকৌশলী আশরাফউদ্দিন বকুল, শিক্ষক-কর্মচারি ঐক্যজোটের সেলিম ভুঁইয়া, সাংসদ নিলোফার চৌধুরী মনি, শাম্মী আখতার প্রমুখ।

এদিকে ইফতার অনুষ্ঠান শেষে খালেদা জিয়া গুলশানে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বাড়ির সামনে যান। সেখানে বাড়ির গেইটের সামনে মওদুদ আহমদের সঙ্গে কথা বলেন এবং বিনা নোটিশে কিভাবে বাড়ি উচ্ছেদ হলো তা শোনেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here