আইএস নিশ্চিহ্ন করার অঙ্গীকার তুরস্কের

0
117

Turkey+vows+to+cleanse+IS+from+its+borderআন্তর্জাতিক ডেস্ক: সীমান্ত এলাকা থেকে ইসলামিক স্টেটকে (আইএস) ‘নিশ্চিহ্ন’ করার প্রতিজ্ঞা করেছে তুরস্ক সরকার।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসগলু আঙ্কারায় এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমাদের সীমান্ত পুরোপুরি দায়েশ (আইএসকে আরবি ভাষায় দায়েশ বলে) মুক্ত করা উচিত এবং এজন্য যা যা করতে হবে তা করতে আমরা প্রস্তুত।’

তিনি বলেন,  ‘ইসলামিক স্টেটে যোগ দিতে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে লোকজন তুরস্ক হয়ে সিরিয়ায় প্রবেশ করে। তুরস্ক সরকার তাদের আটকাতে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। এ কারণে তুরস্ক জঙ্গি দলটির প্রথম টার্গেটে পরিণত হয়েছে।’

তুরস্কের সঙ্গে সিরিয়ার আটশ কিলোমিটারের বেশি দীর্ঘ সীমান্ত রয়েছে।

তুরস্ক সরকার সমর্থিত সিরিয়ার বিদ্রোহী দলগুলোও আইএস বিরোধী অভিযান পরিচালনার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান বিদ্রোহীদের শীর্ষ এক নেতা।

তিনি বলেন, তুর্কি সীমান্তবর্তী সিরীয় শহর জারাবলুসকে আইএস দখলমুক্ত করার প্রস্তুতি চলছে।

‘ফ্রি সিরিয়ান আর্মি’র ব্যানারে যুদ্ধে অংশ নেওয়া বিদ্রোহী দলগুলো আগামী কয়েক দিনের মধ্যে তুরস্কের ভেতর থেকে জারাবলুসে হামলা চালানো শুরু করবে বলে জানা গেছে।

সম্প্রতি তুরস্কে বড় ধরনের কয়েকটি হামলার পেছনে আইএস- এর হাত রয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির সরকার।

সর্বশেষ শনিবার সন্ধ্যায় তুরস্কের কুর্দি অধ‌্যুষিত দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের গাজিয়ানতেপ শহরে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে আত্মঘাতী বোমা হামলা চালিয়ে ৫৪ জনকে হত্যা করা হয়। নিহতদের মধ্যে ২২ জনই শিশু।

১২ থেকে ১৪ বছর বয়সী একটি শিশু ওই হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিজেপ তায়িপ এরদোয়ান।

প্রাথমিক তদন্তে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, হামলার পেছনে ইসলামিক স্টেটের হাত থাকার ইঙ্গিত পাওয়া গেছে বলেও জানান তিনি।

একজন শীর্ষ নিরাপত্তা কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেন, গত বছর জুলাইয়ে সীমান্ত শহর সুরুকে এবং অক্টোবরে রাজধানী আঙ্কারায় কুর্দি সমর্থকদের সমাবেশে হামলায় যে ধরনের বোমা ব্যবহার করা হয়েছিল শনিবারের হামলায়ও একই ধরনের বোমা ব্যবহার করা হয়েছে।

ওই দুইটি হামলার আইএস চালিয়েছে বলে দাবি তুরস্ক সরকারের।

শনিবারের আত্মঘাতী হামলায় যে শিশুটিকে ব্যবহার করা হয়েছে, তার অজ্ঞাতেই সমস্ত কিছু হয়েছে বলে ধারণা করছেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

একজন তদন্ত কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেন, ‘খুব সম্ভবত জঙ্গিরা শিশুটির অজ্ঞাতসারেই তার শরীরে বিস্ফোরক রেখেছে। অথবা হতে পারে শিশুটি বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ছিল, না বুঝেই সে বোমাটি বহন করেছে এবং দূরনিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের মাধ্যমে বোমাটির বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে।’

শিশুটির সঙ্গে বিয়ের অনুষ্ঠানে এসেছিল এমন দুইজন সন্দেহভাজনকে তারা খুঁজেছেন বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here