অ্যাসাঞ্জের মামলা প্রত্যাহারের ঘোষণা সুইডেনের

0
224

julian_assange_47550_1495190704আন্তর্জাতিক ডেস্ক: অনুসন্ধানী ওয়েবসাইট উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে দায়ের করা ধর্ষণ মামলা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে সুইডেন।

সাত বছর ধরে তদন্ত চালানোর পর শুক্রবার এক বিবৃতিতে মামলাটি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় সুইডেনের সরকারি প্রসিকিউটরের কার্যালয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, সরকারি প্রসিকিউশন দফতরের পরিচালক মারিয়ান নাই আজ  (শুক্রবার) ধর্ষণের সন্দেহভাজন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে আর তদন্ত না চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সুইডিশ কর্তৃপক্ষের এ সিদ্ধান্তকে উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা অ্যাসাঞ্জের বড় ধরনের আইনি বিজয় হিসেবে দেখা হচ্ছে।

২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত উইকিলিকসে যুদ্ধকালীন মানবাধিকার হরণ এবং বিভিন্ন দেশের সরকারের গোপন নথি প্রকাশের মাধ্যমে আলোচনায় আসে।

২০১০ সালের জুলাই মাসে উইকিলিকস আফগান যুদ্ধ সংক্রান্ত প্রায় ৭৭ হাজার দলিল এবং অক্টোবরে ইরাক যুদ্ধ সংক্রান্ত চার হাজার দলিল প্রকাশ করে।

একই বছর উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা ৪৫ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় নাগরিক অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে সুইডেনে মামলা করেন দুই নারী।

সুইডেনের পরোয়ানার ভিত্তিতে ২০১০ সালের ৭ ডিসেম্বর লন্ডনে অ্যাসাঞ্জকে গ্রেফতার করে ব্রিটিশ পুলিশ। লন্ডনে অবস্থানসহ কয়েকটি কঠিন শর্তে ১৬ ডিসেম্বর জামিন পান তিনি।

এর প্রায় দেড় বছর পর ব্রিটিশ উচ্চ আদালত অ্যাসাঞ্জকে সুইডিশ কর্তৃপক্ষের কাছে প্রত্যর্পণের পক্ষে রায় দেয়।

এর প্রেক্ষিতে গ্রেফতার এড়াতে ২০১২ সালের ১৯ জুন থেকে লন্ডনে ইকুয়েডরের দূতাবাসে স্বেচ্ছায় অবস্থান শুরু করেন অ্যাসাঞ্জ।

শুক্রবার ছিল ধর্ষণ মামলায় অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে জারিকৃত গ্রেফতারি পরোয়ানা নবায়ন বা তা প্রত্যাহারের শেষ দিন।

কিন্তু নাটকীয়ভাবে এদিন অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় সুইডেনের সরকারি প্রসিকিউটর কার্যালয়।

স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় সাংবাদিকদের কাছে এ ঘোষণা তুলে ধরেন প্রসিকিউশন দফতরের পরিচালক মারিয়ান নাই এবং প্রধান প্রসিকিউটর ইনগ্রিড ইসগ্রেন।

ধর্ষণ মামলা প্রত্যাহারের ঘোষণার অ্যাসাঞ্জের স্বেচ্ছা বন্দিত্বের অবসান ঘটার সুযোগ তৈরি হয়েছে।

এরইমধ্যে স্থানীয় সময় বিকাল সোয়া ৩টায় তিনি লম্বা একটি হাসিমাখা ছবি পোস্ট করেছেন। তবে এতে তিনি কোনো ক্যাপশন বা মন্তব্য দেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here