অ্যামাজন, গুগল, ফেসবুক, নেটফ্লিক্সে গোপনীয়তা রক্ষা করবেন যেভাবে

0
298

174843keeping_your_secrets_safe_on_amazonযখন কারো সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক আন্তরিক হয়ে ওঠে তখন আমরা তার সঙ্গে আমাদের জীবনের অনেক কিছুই ভাগাভাগি শুরু করি। আমরা পরস্পরের গাড়ি ধার করা শুরু করি। আমরা একসঙ্গে চলাফেরা শুরু করি। এমনকি আমরা পরস্পরের নিত্য ব্যবহার্য প্রযুক্তি এবং পাসওয়ার্ডও ব্যবহার শুরু করি।

কিন্তু আপনার ডিভাইস আপনার সম্পর্কে অনেক কিছুই বলে দেয়। আপনার অতীত, আপনার সঙ্গীত রুচি, আপনার উৎসাহের বিষয়গুলো এবং আপনার কেনাকাটার জিনিসিগুলো কী তাও বলে দেয়। তাহলে অনলাইনে এমনকি সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ লোকদের সঙ্গেও ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষা করবেন কীভাবে?

এখানে এমন কয়েকটি কৌশল সম্পর্কে বাতলে দেওয়া হলো যেগুলো আপনাকে অনলাইনে নিরাপত্তার চাদরে মুড়িয়ে রাখবে।
অ্যামাজোন

অ্যামাজোন শুধু আপনি কী কিনলেন তাই নয় বরং আপনি কী ব্রাউজ করেছেন তাও ট্র্যাক করে। তবে সুখবর হলো কোন বিষয়গুলো ট্র্যাক করা হচ্ছে তা আপনি সহজেই গোপন করে রাখতে পারবেন। অ্যাকাউন্ট সেটিংস থেকে আপনার ব্রাউজিং ইতিহাস মুছে ফেলতে পার্সোনালাইজেশন সেকশনটি খুঁজে বের করুন।

পার্সোনালাইজড কন্টেন্ট এ যান >> আপনার ব্রাউজিং ইতিহাস দেখুন এবং ব্যবস্থাপনা করুন। এখানে আপনার অল্প কয়েকটি অপশন রয়েছে। যা থেকে আপনি শুধুমাত্র কয়েকটি নির্দিষ্ট আইটেম অপসারণ করতে পারেন বা সবগুলো আইটেমও অপসারণ করতে পারেন। এমনকি ব্রাউজিং ইতিহাস বন্ধ করেও দিতে পারেন। যাতে আর কখনো আপনি এই সমস্যায় না পড়েন।
আর কেনাকাটার বিষয়গুলো গোপন রাখার জন্য অ্যাকাউন্ট সেটিংসে গিয়ে আপনার অর্ডারগুলোতে যান। সেখান থেকে আপনি যে আইটেমটি লুকাতে চান সেটি লুকিয়ে রাখুন এবং আর্কাইভ অর্ডার সিলেক্ট করুন।

আপনি অ্যামাজোন অ্যাপ ব্যবহার করে অতিরিক্ত ছুটির দিনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেন। ধরুন আপনি আপনার স্ত্রী বা স্বামীর জন্য একজোড়া জুতা কিনলেন। আর এর অর্ডারটি আপনি আর্কাইভ করে রাখলেন। এখন আপনি প্যাকেজটি আসার জন্য অপেক্ষা করছেন। কিন্তু বছরের এই সময়টাতে আপনি এতো সংখ্যক বক্স পান যে, আপনি বিভ্রান্ত হয়ে পড়েন কোন ডেলিভারিটি খুলতে হবে এবং মোড়াতে হবে।

অ্যামাজোন অ্যাপ দিয়ে আপনি বক্সের ওপরের বারকোড স্ক্যান করাতে পারবেন। ফলে তাৎক্ষণিকভাবেই ভেতরে কী আছে তা খুঁজে পাবেন।
গুগল

গুগল প্রায়ই আপনার ব্যক্তিগত তথ্যের ওপর ভিত্তি করে আপনার সার্চ টার্মগুলো সম্পন্ন করে। যেমন আপনার অবস্থান এবং আগের সার্চগুলো। গুগলের যেসব পণ্য আপনার তথ্য সংগ্রহ করে এদের মধ্যে রয়েছে, ক্রোম, গুগল ম্যাপস এবং ইউটিউব।
গুগলে আপনার সার্চ ইতিহাস মুছে ফেলার জন্য আপনার একটি গুগল অ্যাকাউন্ট দরকার হবে। লগ ইন করুন, মাই অ্যাকটিভিটিতে যান এবং এক এক করে আইটেমগুলো অপসারণ করুন।

বেশিরভাগ ব্রাউজারেরই একই ধরনের সহজ উপায় রয়েছে আপনার ব্রাউজিং হিস্টোরি মুছে ফেলার জন্য।
ফেসবুক

আমাদের অনেকের জন্যই, ফেসবুক একটি টানা ডিজিটাল ইয়ারবুকের মতো। আপনার হয়তো একটি পারিবারিক কম্পিউটার আছে। আর আপনি সাধারণত ফেসবুক থেকে লগআউট করতে ভুলে যান। অন্য লোকেরাও একই কম্পিউটার ব্যবহার করেন। তারা আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে হুট করেই হয়তো ঢুকে পড়েন। আর তারা আপনার সার্চ হিস্টোরিও দেখতে পান।
আপনার স্বামী বা স্ত্রীও হয়তো আপনার ওপর গোয়েন্দাগির করতে পারেন। যাতে হয়তো কোনো ভুল বুঝবুঝির সৃষ্টি হতে পারে।
বিভ্রান্তির সৃষ্টি করতে পারে এমন কোনো কথপোকথন লুকিয়ে রাখার জন্য আপনার ফেসবুক পেজের অ্যাক্টিভিটি লগ ওপেন করুন। বাম পাশের কলাম থেকে মোর অপশনটি সিলেক্ট করুন>> সার্চ >> ক্লিয়ার সার্চেস। অথবা আপনি প্রতিটি সার্চ আইটেম একে একে অপসারণ করতে পারেন।
নেটফ্লিক্স

আমাদের সকলের মধ্যেই দোষী আনন্দ রয়েছে। বিশেষ করে সিনেমা দেখার সময় এটি বেশ কাজ করে। আপনি হয়তো গোপনে লার্স ভন ট্রাইয়ার্স এর “নিম্ফোমেনিয়াক” দেখে থাকবেন এবং ভেবে থাকবেন আর্ট হাউজ সিনেমার একটি মহান কাজ ছিল সেটি। কিন্তু কক্ষভর্তি লোকের কাছে তা ব্যাখ্যা করাটা হয়তো কঠিন হতে পারে।

আপনি যদি অতীতের স্ক্রিনিং গোপন করতে চান, তাহলে মাই অ্যাকাউন্টে যান >> ভিউয়িং হিস্টোরি। মনে রাখবেন কোনো আইটেম সবসময়ই তাৎক্ষণিকভাবে মুছে যায় না। আপনার সব ডিভাইস হালনাগাদ করতে ২৪ ঘন্টা সময়ও লেগে যেতে পারে।
নেটফ্লিক্সে বহুমুখি প্রোফাইলও তৈরি করা যায়। ফলে আপনি যদি আপনার ভিউয়িং হিস্টোরি গোপন রাখতে চান তাহলে আপনি একটি ব্যক্তিগত প্রোফাইল তৈরি করে তাতে পাসওয়ার্ডযুক্ত করে তা সংরক্ষিত করতে পারেন।
ছদ্মবেশ ধারন করুন

ক্রোম, এজ, ফায়ারফক্স, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার, সাফারি এবং ওপেরা সহ প্রতিটি ওয়েব ব্রাউজারেই ব্যক্তিগত বা ছদ্মবেশ ব্রাউজিং সেটিংস আছে। এই ফিচার অন করার মানে হলো আপনার ব্রাউজার কুকি এড়িয়ে চলবে। এবং আপনার ব্রাউজিং হিস্টোরি রেকর্ড করবে না। আপনি কখনো অনলাইনে ছিলেন কিনা তা বুঝাই যাবে না।
সুত্র: ফক্স নিউজ