অ্যাজমার সমস্যা বৃদ্ধি করে নিতান্ত সাধারণ যে বিষয়গুলো

0
227

cryআমরা সবাই এটাই জানি যে, ধুলো ও ফুলের পরাগ রেণু অ্যাজমা বা হাঁপানির সমস্যাকে বৃদ্ধি করে। কিন্তু আপনি কি জানেন অনেক বেশি কান্নার ফলেও বৃদ্ধি পেতে পারে অ্যাজমার সমস্যা? আপনার যদি অ্যাজমার সমস্যা থাকে তাহলে কোন কারণে আপনার সমস্যাটি বৃদ্ধি পায় তা চিহ্নিত করে রাখা ভালো। যাতে আপনি অ্যাজমা অ্যাটাক এড়িয়ে চলতে পারেন অথবা সম্ভাব্য অ্যাটাকের জন্য প্রস্তুতি নিতে পারে। অ্যাজমার সমস্যা বৃদ্ধি করে এমন নিতান্ত সাধারণ কিছু বিষয় সম্পর্কেই জানবো এই ফিচারে।

১। বজ্রপাতসহ ঝড় বৃষ্টি

কারেন্ট অ্যালার্জি এন্ড অ্যাজমা নামক জার্নালে প্রকাশিত বৈজ্ঞানিক গবেষণায় জানা যায় যে, বজ্রপাতের পরে নাটকীয়ভাবে অ্যাজমার সমস্যা বৃদ্ধি পায়। বজ্রধ্বনির সময় পরাগ রেণু বিদীর্ণ হয় এবং বায়ুবাহিত অ্যালারজেন মুক্ত হয়। যার ফলে অ্যাজমায় আক্রান্তদের অ্যাজমা অ্যাটাক হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।

২। প্রচন্ড হাসি বা কান্না

আবেগের চরম অবস্থায় হাঁপানি রোগীরা যদি প্রচন্ড হাসে বা কাঁদে তাহলে বায়ু চলাচলে বাধার সৃষ্টি হয় এবং শ্বাসের ধরণের পরিবর্তন হওয়ার ফলে তাদের অ্যাজমা অ্যাটাক হতে পারে বলে জানা যায় অ্যাজমা নামক জার্নালের গবেষণা প্রতিবেদনে।

৩। স্ট্রেস

স্ট্রেসে থাকা অবস্থায় যদি বুকে আঁটসাঁট অনুভব করেন তাহলে আপনার সতর্ক হতে হবে। মানসিক চাপে ভোগার সময় বুকে চাপ অনুভব করা হাঁপানির লক্ষণ হতে পারে বলে জানা যায় ব্রেইন, বিহেভিয়ার এন্ড ইমিউনিটি নামক জার্নালের রিপোর্টে।

৪। ফুড এডিটিভস

কৃত্রিম রঙ, কৃত্রিম সুগন্ধি ও প্রিজারভেটিভ অ্যাজমা অ্যাটাকের কারণ হতে পারে। তাই প্যাকেটজাত খাবার কেনার সময় এর লেভেলটি ভালো করে পড়ে নিন। উত্তর আমেরিকার ইমিউনোলজি এন্ড অ্যালার্জি ক্লিনিক নামক জার্নালে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে জানা যায় যে, সোডিয়াম বাইসালফাইট, সোডিয়াম সালফাইট এবং পটাসিয়াম বাইসালফাইট এই যৌগগুলো অ্যাজমার সমস্যা বৃদ্ধি করে।

৫। অ্যাসপিরিন

ড্রাগস জার্নালে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে জানা যায় যে, অ্যাজমা আক্রান্ত অনেক বয়স্ক মানুষের মধ্যেই অ্যাসপিরিনের প্রতি সংবেদনশীলতা দেখা যায় এবং অ্যাসপিরিন গ্রহণ করলে তাদের মধ্যে অ্যাজমার লক্ষণ প্রকাশ পায়। নন স্টেরয়ডাল অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি ড্রাগ যেমন- ইবোপ্রুফেন এবং নেপ্রোক্সেন ও অ্যাজমার সমস্যা বৃদ্ধি করে।

৬। ট্রাফিক জ্যাম

আপনি যদি অ্যাজমা রোগী হন তাহলে বাহিরে বের হওয়ার সময় সাথে ইনহেলার রাখতে হবে কারণ রাস্তায় জ্যামে পড়লে অ্যাজমার সমস্যা বৃদ্ধি পেতে পারে। ইপিডেমিওলজি নামক জার্নালের প্রতিবেদনে বলা হয় যে, গাড়ির দূষণ ও ধোঁয়ার কারণে অ্যাজমা অ্যাটাকের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

৭। এয়ার ফ্রেশনার ও সুগন্ধি মোমবাতি

এয়ার ফ্রেশনার ও সুগন্ধি মোমবাতি ঘরে সতেজতা ও সুগন্ধ দেয়। কিন্তু এরা অ্যালার্জিকে তীব্র করে এবং অ্যাজমার সমস্যা বৃদ্ধি করে বলে জানা যায় আমেরিকান জার্নাল অফ মেডিসিনে প্রকাশিত প্রতিবেদনে।