অসংখ্য ভুলে ভরা বইয়ের মান নিয়ে সমালোচনা

0
141

15910290_1250145518406699_683417443_nঢাকা: স্কুলের পাঠ্যবইয়ে অসংখ্য ভুল ও বইয়ের মান নিয়ে চলছে তীব্র সমালোচনা। এর জন্য দায়ী করা হচ্ছে কর্তৃপক্ষের দায়িত্বহীনতাকে। অভিযোগ স্বীকার করেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড। তারা বলছে তদন্ত করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কয়েক বছরের ধারাহিকতায় এবারো বছর শুরুর দিনেই পাঠ্যবই পেয়েছে স্কুলশিক্ষার্থীরা। তবে বই বিতরণের পরই নানান ধরনের ভুল নিয়ে সমালোচনায় পড়েছে সরকার। বইয়ের ছাপা ও বাঁধাইয়ের মান নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন।

প্রথম শ্রেণির বাংলা পাঠ্যবইয়ে অক্ষরজ্ঞান সূচিতে পাঠ ১২-তে ‘ও’ অক্ষর চেনানোর উপকরণ হিসেবে ‘ওড়না’কে ব্যবহার করা হয়েছে৷ ‘শুনি ও বলি’ পাঠে ‘ও’ অক্ষর চেনাতে ওড়না পরা এক কন্যাশিশুর ছবি দিয়ে লেখা হয়েছে- ‘ওড়না চাই’৷

প্রথম শ্রেণির বাংলা বইয়ের লেখা ও ছবিতে ‘ছাগল গাছে উঠে আম খাচ্ছে’ বোঝাতে চেয়েছেন লেখক৷ বাংলা পাঠ্যবইটির ১১ পাতায় অ-তে অজ (ছাগল) বোঝাতে গিয়ে ছাগলের ছবি জুড়ে দেয়া হয়েছে৷ ছাগলের গাছে উঠে আম খাওয়ার মতো অসম্ভব বিষয় শিখতে হবে শিশুদের!

তৃতীয় শ্রেণির বাংলা বইয়ে কুসুমকুমারী দাশের ‘আদর্শ ছেলে’ কবিতা বিকৃত করা হয়েছে৷ ‘আমাদের দেশে হবে সেই ছেলে কবে’ না লিখে লেখা হয়েছে ‘আমাদের দেশে সেই ছেলে কবে হবে?’ এছাড়া ‘মানুষ হইতে হবে- এই তার পণ’ না লিখে ‘মানুষ হতেই হবে- এই তার পণ’ লেখা হয়েছে৷ ‘হাতে প্রাণে খাট সবে শক্তি কর দান’ এই লাইনে ‘খাট’ শব্দটির বানান বদলে দিয়ে লেখা হয়েছে ‘খাটো’৷

এছাড়া চতুর্থ শ্রেণির ‘বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়’ বইয়ের ৭৮ পাতায় ‘১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ’ লেখায় মুক্তিযুদ্ধ শব্দটি কখনো ‘মুক্তিযুদ্ধ’ আবার কখনো ‘মুকতিযুদ্ধ’৷ ‘বঙ্গবন্ধু’ বানানটি ভেঙে ঙ-গ আলাদা আলাদা করে লেখা৷

অষ্টম শ্রেণির ‘আনন্দপাঠ’ বইটির সাতটি গল্পের সবগুলোই বিদেশি লেখকদের গল্প, উপন্যাস অবলম্বনে লেখা বা ভাষাগত রূপান্তর করা হয়েছে৷ গল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে-আরব্য উপন্যাস অবলম্বনে ‘কিশোর কাজী’, মার্ক টোয়েনের ‘রাজকুমার ও ভিখারির ছেলে’, ড্যানিয়েল ডিফোর ‘রবিনসন ক্রুসো’, মহাকবি আবুল কাশেম ফেরদৌসীর ‘সোহরাব রোস্তম’, উইলিয়াম শেকসপিয়ারের ‘মার্চেন্ট অব ভেনিস’, ওয়াশিংটন আরভিং রচিত গল্প অবলম্বনে ‘রিপভ্যান উইংকল’ এবং লেভ তলস্তয়ের গল্প অবলম্বনে ‘সাড়ে তিন হাত জমি’৷ এসব নিয়ে বিভ্রান্তিতে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।

বইয়ের ছাপা ও বাঁধাইয়ের মান নিয়েও উঠেছে অভিযোগ। অনেক জেলার বিদ্যালয়ে বিনামূল্যের পাঠ্যবইয়ের জন্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেয়ার অভিযোগও পাওয়া গেছে।

পাঠ্যবইয়ে ভুলের অভিযোগ স্বীকার করেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড এনসিটিবি। এ বিষয়ে শিগগিরই তদন্ত কমিটি করার আশ্বাস দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

LEAVE A REPLY