অবৈধ অভিবাসীদের আটক করতে কুয়ালালামপুরে অভিযান

0
138

malyমালয়েশিয়া প্রতিনিধি: অবৈধ অভিবাসীদের আটক করতে মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে অভিযান চালিয়েছে দেশটির পুলিশ। অবৈধভাবে অবস্থান করার অভিযোগে স্থানীয় সময় শনিবারের এ অভিযানে নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে বাংলাদেশ, মিয়ানমার ও নেপালের কয়েকশ নাগরিককে আটক করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

কুয়ালালামপুর নগর পুলিশের উপপ্রধান দাতুক, আবদুল হামিদ মোহাম্মদ আলী দেশটির গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় দুপুর ২টা থেকে ‘অপ নিয়াহ’ নামের চার ঘণ্টাব্যাপী অভিযানে নামেন দেশটির ২৭১ পুলিশ সদস্য। এ অভিযানে যুক্ত ছিল ইমিগ্রেশন, রেলা, ইউনাইটেড নেশনস হাইকমিশনার ফর রিফিউজিস, সিভিল ডিফেন্স ডিপার্টমেন্টসহ বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা।

হামিদ বলেন, অবৈধভাবে বিদেশিরা অবস্থান করছে বলে অভিযোগ পাওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হচ্ছে। অবৈধভাবে যারা অবস্থান করছে তাদের ফেরত পাঠানো হবে।

দেশটির অনলাইন পত্রিকা নিউ স্ট্রেটস টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কুয়ালালামপুরের সেন্ট্রাল মার্কেট ও মসজিদ জামিক এলাকা থেকে ১২০ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ। তাঁদের মধ্যে বাংলাদেশ, মিয়ানমার ও নেপালের নাগরিকরা আছেন।

তবে প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকে জানিয়েছেন, এ অভিযানে কুয়ালালামপুরের বিভিন্ন এলাকা থেকে ৭০০-৮০০ বিদেশি নাগরিককে আটক করা হয়েছে। এ অভিযানে কুয়ালালামপুরে পাসার সেলায়াং, পাসার পুডু, পাসার চকেট, পাসার সেনি, বুকিট বিনতাং, মসজিদ ইন্ডিয়া, মসজিদ জামিক এল আরটি, হসপিটাল কুয়ালালামপুর, কুয়ালালামপুর সেন্ট্রাল রেলওয়ে স্টেশন ও সেন্ট্রাল এরিয়া, হাং তোয়াহ, পুডু সেন্ট্রাল ও টিবিএস বাস টার্মিনাল থেকে কয়েকশ বিদেশিকে আটক করা হয়েছে।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাতেও অভিযান অব্যাহত থাকতে পারে। আগামীকাল রাত ৯টা পর্যন্ত এ অভিযান চলতে পারে। যে কোনো আবাসিক এলাকার পাশাপাশি ফ্ল্যাট, অ্যাপার্টমেন্টে পুলিশ হানা দিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিশেষ করে আবদুল্লাহ হুকুম, বুকিট আংকাসা, বাংসার সাউথ, পান্তাই ডালাম, ওয়ার্তা উত্তর ও দক্ষিণ, বাতু মুডাহ, বাতু পেরমাই, সেগামবোত ও সেরি সিনার এলাকায় অভিযান চলতে পারে।

প্রবাসী বাংলাদেশি সাংবাদিক গৌতম রায় জানান, এ অভিযান স্মরণকালের বড় অভিযান। আগামী দুদিন কুয়ালালামপুরের কোথাও নিরাপদ নয় অবৈধ অভিবাসীদের জন্য। বাসাবাড়ি, বাস, ট্যাক্সি, কর্মস্থল, দোকানপাট থেকে শুরু করে সর্বত্র অভিযান চলবে। যাঁদের কাগজপত্রে ত্রুটি আছে তাঁদেরও আটক করা হতে পারে।

কমিউনিটির নেতারা প্রবাসী বাংলাদেশিদের সবাইকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে নিয়ে চলাফেরার আহ্বান জানিয়েছেন।