অবজারভারের বিরুদ্ধে সংসদে শামীম ওসমানের নোটিশ গ্রহণ

0
139

shaokatঢাকা: ব্যক্তিগত অধিকার ক্ষুন্নের অভিযোগ এনে ইংরেজি দৈনিক ‘ডেইলী অবজারভারে’ বিরুদ্ধে সরকারদলীয় সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমানের (নারায়ণগঞ্জ-৪) দেয়া নোটিশ গ্রহণ করেছে সংসদ। নোটিশটির বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্ট কমিটিতে পাঠানো হয়েছে।

প্রথম আলো এবং বাংলাট্রিবিউনের বিরুদ্ধেও নোটিশ এনেছিলেন। তবে বিধি অনুযায়ী শর্ত পূরণ না হওয়ায় তা সংসদে গ্রহণ করা হয়নি। সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের শুরুতেই বুধবার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বিষয়টি সংসদকে অবহিত করেন। এসময় তিনি জানান, ‘আজ ১৫ ফেব্রুয়ারি বিকেলে সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ব্যক্তি অধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে বলে ৩টি নোটিশ দিয়েছেন।নোটিশ ৩টির মধ্যে প্রথমটি ‘দ্য ডেইলী অবজারভার’ পত্রিকায় গত ২৩ জানুয়ারি প্রথম পৃষ্ঠায় চতুর্থ কলামে অসত্য বিত্তিহীন কাল্পনিক খবর প্রকাশ করায় সদস্যের পারিবারিক সামাজিক এবং রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন ও দেশ-বিদেশে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হওয়ায় তার সুনাম ক্ষুন্ন হয়েছে বলে বিশেষ অধিকার ক্ষুন্ন হওয়ার কথা তার নোটিশে উল্লেখ করেছেন।’

দ্বিতীয়ত দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকায় ২০১৪ সালের ১ জুন ‘আইনজীবীকে হত্যায় অনুতপ্ত র‍্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তা’ শিরোনামে যে রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে তাতে সংসদ সদস্য শামীম ওসমানকে জড়িত করে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন নোটিশদাতা। তার বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলকভাবে হেয় প্রতিপন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে ক্ষতিগ্রম্ত করায় বিশেষ অধিকার ক্ষুন্ন করার অভিযোগ করেছেন। তৃতীয়ত বাংলাট্রিবিউন অনলাইন পত্রিকায় ২০১৬ সালের ২৭ নভেম্বর তার বাবাকে জড়িত করে রিপোর্ট করায় কার্যপ্রাণালী বিধির ১৬৪ বিধিতে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করেছেন। স্পিকার বলেন, তার তিনটি নোটিশের বিশেষ অধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে বলে স্পিকারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ করেছেন।

নোটিশ তিনটির বিষয় কার্যপ্রানালী বিধি অনুযায়ী পরীক্ষা করা হয়েছে। তার তিনটি নোটিশের মধ্যে দ্বিতীয় এবং তৃতীয়টি বিশেষ অধিকার সম্পর্কি বিধি ১৬৫(২) অনুযায়ী বিশেষ অধিকার প্রশ্ন উত্থাপনের শর্তাবলী পূরণ হয়নি। বিধিতে বলা হয়েছে উত্থাপনীয় ‘প্রশ্নটি সম্প্রতি সংঘটিত কোন সুনির্দিষ্ট বিষয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে এবং তা প্রথম সুযোগেই উত্থাপন করতে হবে। তাই গ্রহণ করা সম্ভব হল না। প্রথম নোটিশটি কার্যপ্রনালী বিধির ১৬৯ বিধি অনুযায়ী বিশেষ অধিকার সম্পর্কি কমিটিতে পাঠানো হল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here